মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৭:০৯:৩৭ এএম

ঘরোয়া লিগেও সাফল্য ডানায় মুমিনুল

খেলাধুলা | শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ০২:২৪:৫৭ পিএম

ভারতীয় ব্যাটসম্যান দেবব্রত দাসের সেঞ্চুরির সুবাদে বড় পুঁজিই পেয়েছিল ব্রাদার্স ইউনিয়ন। তবে ব্যাটিংক্রমের শীর্ষ পাঁচে তিন অর্ধশতক নিয়ে রুদ্ধশ্বাস জয় দেখলো গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। গতকাল ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগে দুই উইকেটের জয় পায় শিরোপাধারী গাজী গ্রুপ। বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠে (বিকেএসপি-৩) টস জিতে প্রতিপক্ষকে ব্যাটিংয়ে পাঠান গাজী গ্রুপের অধিনায়ক ইমরুল কায়েস। আর ইনিংস শেষে ব্রাদার্স ইউনিয়নের সংগ্রহ পৌঁছে ২৭২/৫-এ। চার নম্বরে ব্যাট হাতে হার না মানা ১১২ রানের ইনিংস খেলেন দেবব্রত দাস। ঘরোয়া লিগেও সাফল্য ডানায় মুমিনুল। এখানেও মুমিনুল খেলেন ৫৭ রানের ইনিংস।

১০৯ বলের ইনিংসে দেবব্রত হাঁকান ৭টি চার ও আধাডজন ছক্কা। অলক কাপালি ৪১ বলে ৪১ ও ইয়াসির আলী করেন ৩৬ বলে ৫৪ রান। ইয়াসিরের ইনিংসে ছিল দুই বাউন্ডারির সঙ্গে ৪টি ছক্কার মার। জবাবে ম্যাচের শেষ ওভারে জয় পায় গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। ওপেনার ইমরুল কায়েস ৬৪, ওয়ানডাউন ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক ৫৭ ও ভারতীয় রিক্রুট গুরকিরাত সিং মান খেলেন হার না মানা ৭১ রানের ইনিংস। ৩৩ ওভারে ১৯৭/৪ সংগ্রহ নিয়ে ম্যাচ সহজই দেখাচ্ছিল গাজী গ্রুপের। তবে পরের ৩৮ রানে চার উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচে ফেরে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। জয়ের জন্য ইনিংসের শেষ দুই ওভারে ১৩ রানের দরকার ছিল গাজী গ্রুপের। হাতে ছিল দুই উইকেট। ৪৯তম ওভারের চার সিঙ্গেল ও গুরকিরাতের ছক্কায় ১০ রান যোগ হয় গাজী গ্রুপের স্কোর বোর্ডে। আর শেষ ওভারের প্রথম ডেলিভারিটি ছিল ডটবল। কিন্তু দ্বিতীয় বলে ৫ ওয়াইড রান দিয়ে বসেন ব্রাদার্সের স্পিন তারকা নিহাদুজ্জামান। চলতি আসরে পাঁচ ম্যাচে এটি গাজী গ্রুপের দ্বিতীয় জয়। আর পাঁচ ম্যাচে এটি ব্রাদার্সের তৃতীয় হার। শতভাগ জয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে আবাহনী লিমিটেড। তালিকার দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ও শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের সংগ্রহ সমান ৬ পয়েন্ট। আসরে সর্বাধিক ৩৩৭ রান সংগ্রহ আবাহনীর ওপেনার এনামুল হক বিজয়ের। আবদুল মজিদ ৩৩৩ ও নুরুল হাসান সোহানের সংগ্রহ ৩১৪ রান। বল হাতে যথাক্রমে ১৫ ও ১৩ উইকেট নিয়ে তালিকার শীর্ষে রূপগঞ্জের দুই বাঁ-হাতি স্পিনার মোশাররফ হোসেন রুবেল ও আসিফ হাসান।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
ব্রাদার্স-গাজী গ্রুপ
টস: গাজী গ্রুপ, ফিল্ডিং
ব্রাদার্স ইউনিয়ন: ৫০ ওভার; ২৭৩/৫ (দেবব্রত ১১২*, ইয়াসির ৫৪, জুনাইদ ৪৩, অলক ৪১, নাইম ২/২৯, রুহেল ২/৫৬, আবু হায়দার ১/৬৪)।
গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স: ৪৯.১ ওভার; ২৭৬/৮ (গুরকিরাত ৭১*, ইমরুল ৬৫, মুমিনুল ৫৭, জাকের ১৫, নিহাদুজ্জামান ২/৪৩, মেহেদী রানা ২/৪৯, খালেদ ২/৫৭)।
ফল: গাজী গ্রুপ ২ উইকেটে জয়ী
ম্যাচসেরা: গুরকিরাত সিং (গাজী গ্রুপ)
মুশফিক-নাঈমের ব্যাটে রূপগঞ্জের বড় জয়
মুশফিকুর রহীম ও নাঈম ইসলামের ব্যাটে প্রাইম দোলেশ্বরকে ৫৫ রানে হারিয়েছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। গতকাল মিরপুর শেরে বাংলা মাঠে টসে হেরে ব্যাট করতে নামে রূপগঞ্জ। জাতীয় দলের তারকা মুশফিকের ঝড়ো ফিফটিতে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেটে রূপগঞ্জের সংগ্রহ ২৭২ রান। এছাড়াও জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া নাঈম ৯৫ বলে ৭৮ রান করেন। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন তিনি। দোলেশ্বর ২১৭ রানেই সবক’টি উইকেট হারায়। শুরুতে রূপগঞ্জের ৭৫ বলে ৫৯ করেন ওপেনার আবদুল মজিদ। এরপর দলের রানের গতি ধরে রাখেন মুশফিক। ৬৭ বলে ৮ চারে তিনি করেন ৬৫ রান। লিস্ট এ ম্যাচে এটি মুশফিকের ১৬তম ফিফটি। ফরহাদ রেজার বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরেন এই ব্যাটসম্যান। দোলেশ্বরের পক্ষে ৯ ওভারে ৪০ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেন আরাফাত সানি। ১০ ওভারে ৭৫ রান দিয়ে ফরহাদ রেজা পেয়েছেন ২টি উইকেট।
জবাব দিতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিংয়ে ধস পড়ে দোলেশ্বরের। রূপগঞ্জের বোলারদের সামনে ব্যাট হাতে দাঁড়াতেই পারেননি ব্যাটসম্যানরা। মাত্র ৮ রানেই হারায় ৩ উইকেট। মোশাররফ হোসেন আর আসিফ হাসানের দুর্দান্ত বোলিংয়ে হাতে দুই ওভার বাকি থাকতেই অলআউট হয় দোলেশ্বর। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন শরিফুল্লাহ। ৩৫ রান করেন ইমতিয়াজ হাসান। রূপগঞ্জের হয়ে ৪টি উইকেট নেন মোশাররফ এবং ৩ উইকেট নেন আসিফ। পাঁচ ম্যাচে ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে রূপগঞ্জ উঠে এসেছে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
রূপগঞ্জ-দোলেশ্বর
টস: দোলেশ্বর, ফিল্ডিং
লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ: ৫০ ওভার; ২৭২/৭ (নাঈম ৭৮, মুশফিক ৬৫, মজিদ ৫৯, মো. নাঈম ২৭, আরাফাত সানি ৩/৪০. রেজা ২/৭৫, আরাফাত সানি (জু.) ১/১৮)।
প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব: ৪৭.৫ ওভার; ২১৭ (শরিফুল্লাহ ৪১, ইমতিয়াজ ৩৫, সানি ২৮*, রেজা ২৫, মোশাররফ রুবেল ৪/৪০, আসিফ ৩/৪৬, শহীদ ১/২৮)
ফল: রূপগঞ্জ ৫৫ রানে জয়ী
ম্যাচসেরা: নাঈম ইসলাম (রূপগঞ্জ)।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন