বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮ ১০:০৪:১৬ এএম

অ্যাবোটের বাউন্সারে লুটিয়ে পড়লেন ব্যাটসম্যান (ভিডিও)

খেলাধুলা | রবিবার, ৪ মার্চ ২০১৮ | ০৯:৪০:৩৪ পিএম

ফিল হিউজকে কি কেউ ভুলে গেছেন? প্রশ্নটা করাই বৃথা। ২০১৪ সালের নভেম্বরে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচে পেসার কাইল অ্যাবোটের একটি বাউন্সার সামলাতে না পেরে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে বিদায় নিয়েছিলেন হিউজ। হিউজের মৃত্যু অ্যাবোটকে এতটাই নাড়া দিয়েছিল যে, ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিতে চেয়েছিলেন অ্যাবোট। পরে হিউজের পরিবারের সদস্যরাই তাকে ক্রিকেটে ফিরিয়েছেন।

নতুন করে আবার শুরু করেছেন অ্যাবোট। কারণ, পেশাদার ক্রিকেটে আবেগের কোনো স্থান নেই। শেফিল্ড শিল্ডে আজ আবারও বাউন্সার দিয়ে অ্যাবোট ফিরিয়ে এনেছিলেন হিউজের স্মৃতি। আজ অ্যাবোটের এক বাউন্ডার সামলাতে না পেরে ভিক্টোরিয়ার তরুণ ব্যাটসম্যান উইল পুকোভস্কি মাটিতে লুটিয়ে পড়েছিলেন।

শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচে মেলবোর্নের জংশন ওভালে নিউ সাউথ ওয়েলসের হয়ে ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে বোলিং করছিলেন অ্যাবোট। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ের ১৯তম ওভারে অ্যাবোটের একটি বাউন্সার সামলাতে পারেননি পুকোভস্কি। তার হেলমেটে সরাসরি বল গিয়ে আঘাত করেছিল। সঙ্গে সঙ্গে হাঁটু মুড়ে উইকেটে বসে পড়েছিলেন পুকোভস্কি। সবার আগে তার কাছে গিয়ে পৌঁছেছিলেন বোলার অ্যাবোট। হয়তো মনের কোণে আবারো অ্যাবোটের সেই ‘হিউজ সৃত্মি’ উঁকি দিয়েছিল।

হিউজের হেলমেট ফাঁকি দিয়ে লেগেছিল ঘাড়ের বাঁ পাশে। তিন দিন পর মৃত্যু হয় হিউজের। সে রকম মর্মান্তিক কোনো ঘটনার জন্ম আরেকটি হয়নি। তবে, অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে যান পুকোভস্কি। আঘাতের পর কয়েক মিনিট ঠিকভাবে দাঁড়াতে পারেননি পুকোভস্কি। শেষ পর্যন্ত দলের ফিজিও এবং চিকিৎসকের সহায়তায় মাঠ ছাড়েন তিনি। তিনি মাঠ ছাড়ার পর উইকেটে আসেন ভিক্টোরিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।

দলের চিকিৎসক ট্রেফর জেমস জানিয়েছেন, ‘আগামী কয়েক দিন পুকোভস্কিকে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রাখা হবে। আপাতত সে কিছুটা সুস্থবোধ করলেও কয়েক দিন পর আমরা তার খেলায় ফেরার ব্যাপারে নিশ্চিত করে বলতে পারব।’

পুকোভস্কির বদলি হিসেবে ভিক্টোরিয়ার একাদশে ঢুকেছেন ৩৪ বছর বয়সী অলরাউন্ডার ড্যানিয়েল ক্রিস্টিয়ান। ‘কনকাশন (মাথায় চোট) সাবস্টিটিউট’ হিসেবে মাঠে নামার এই নিয়ম গত বছর অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ক্রিকেটে চালু হয়।

২০ বছর বয়সী পুকোভস্কির মাথায় আঘাত লাগার ঘটনা অবশ্য এটিই প্রথম নয়। স্কুল ফুটবলে খেলার সময় সতীর্থের হাঁটু লেগেছিল তার মাথায়। সেই ঘটনায় ছয় মাস মাঠের বাইরে থাকতে হয় তাকে। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে পুকোভস্কির প্রথম শ্রেণির অভিষেকে ফিল্ডিংয়ের সময় একটি বল লাগে তার মাথায়। জেএলটি ওয়ানডে সিরিজ এবং ফিউচার লিগেও বলের আঘাত পেয়েছেন মাথায়। এছাড়া, গত অক্টোবরে ওয়ানডে কাপে ব্যাটিংয়ের সময়ও তিনি একইভাবে আঘাত পান। আজকের আঘাতটা এ মৌসুমে তৃতীয়বারের মতো। তাই বাউন্সার সামলাতে পুকোভস্কির টেকনিকেই সমস্যা দেখছেন অনেকে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন