বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮ ০৬:৩৮:২১ পিএম

সেই রাতের একমাত্র সাক্ষী ছিলেন তিনিই

বিনোদন | সোমবার, ৫ মার্চ ২০১৮ | ০৩:৩৩:০১ পিএম

ভারতের তারকা অভিনেত্রী শ্রীদেবীর মৃত্যুর পর কেটে গেছে এক সপ্তাহ। সময়টা আকস্মিক এক ঝড়ের মধ্য দিয়েই কাটিয়েছে বলিউডের কাপুর পরিবার। এর মধ্যে শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে রটেছে প্রচুর গুঞ্জন, উঠেছে বহু প্রশ্নও। আর এ সবকিছুর মাঝেই অবশেষে শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে প্রথম মুখ খুললেন স্বামী বনি কাপুর।

সেই রাতের একমাত্র সাক্ষী ছিলেন তিনিই।

ভয়ংকর রাতের সেই অভিজ্ঞতা নিজের ৩০ বছরের পুরনো বন্ধু ট্রেড অ্যানালিস্ট কোমল নাহাতকে অকপটে জানিয়েছেন বনি। নাহাত তার ব্লগে সে সব কথা শেয়ার করেন।
খালিজ টাইমস এক খবরে জানিয়েছে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ে একটি হোটেলের বাথটাবের পানিতে ডুবে মারা যান ভারতের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। সেদিন তার স্বামী বনি কাপুরই তাকে প্রথম বাথটবে দেখেন।

বন্ধু নাহাতকে বনি বলেন, শ্রীদেবীকে চমকে দিতে হঠাৎ তিনি দুবাই যান এবং এর দুই ঘণ্টা পরই হোটেলের বাথটবে তিনি শ্রীদেবীকে মৃত অবস্থায় পান।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি পারিবারিক বিয়েতে অংশ নেওয়ার জন্য দুবাইয়ের রাশ আল খাইমায় ছিলেন বনি, শ্রীদেবী এবং মেয়ে খুশি। বিয়ের পর ২২ ফেব্রুয়ারি লখনৌতে একটি ‘গুরুত্বপূর্ণ সভায়’ যোগদানের জন্য ফিরে আসেন বনি। তবে মেয়ে জাহ্নবীর জন্য কেনাকাটা জন্য আরও দুদিন থেকে গিয়েছিলেন শ্রীদেবী।

ঘটনার বর্ণনায় বনি বলেন, শ্রীদেবীকে চমকে দিতেই তিনি আবারও দুবাই ফিরে যান। তিনি যখন হোটেল রুমে পৌঁছে তার স্ত্রী সঙ্গে দেখা করেন তখন ছিল সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিট। স্ত্রীকে চমক দেওয়ার দুঘণ্টার মধ্যে এমন ভয়াবহ ঝড় তাঁর জীবনে আসতে চলেছে, সেটা ভাবতেও পারেননি বনি।

খালিজ টাইমসের রিপোর্টে বলা হয়েছে, হোটেল রুমে স্বামী-স্ত্রী দুজনে ১৫ মিনিটের মতো কথাবার্তা বলেন। এর পরই স্ত্রীকে রোম্যান্টিক ডিনারে যাওয়ার আমন্ত্রণ করেন বনি। পরে প্রস্তুতি নিতেই গোসল সারতে বাথরুমে ঢোকেন শ্রীদেবী।

বনি নাহাতকে বলেন, শ্রী যখন গোসল করে প্রস্তুত হতে বাথরুমে যায় তখন আমি শোবার ঘরে বসে টিভি দেখছিলাম। এর ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর আমি অস্থির হয়ে উঠেছিলাম। কারণ ৮টার দিকে রেস্টুরেন্টগুলোতে আর বসার জায়গা পাওয়া যায় না। এ কারণে বনি চিৎকার করে শ্রীদেবীকে ডাকতে থাকেন। দুবার ডাকেও কোনো সাড়া না পাওয়ায়, তিনি টিভির শব্দ কমিয়ে দেন। কিন্তু তাতে কোনো উত্তর পাননি। পরে তিনি বাথরুমের দরজায় টোকা মেরে স্ত্রীকে বের হতে বলেন।

এ সময় তিনি কল থেকে পানি পড়ার শব্দ শুনতে পান। পরে ‘জান’ ‘জান’ বলে জোরে জোরে ডাকতে থাকেন। কিন্তু কোনো উত্তর পাননি তিনি।

বনির জানান, বাথরুমের দরজা খোলাই ছিল। তিনি কিছুটা চিন্তিত হয়ে পড়েন। কিন্তু ভেতরে ঢুকে যা দেখেছিলেন তার জন্য তিনি প্রস্তুত ছিলেন না। ঢুকেই তিনি দেখেন, বাথটাবটি পানিতে ভর্তি এবং শ্রীদেবীর মাথা থেকে পা পর্যন্ত পানিতে ডুবে ছিলো। পরে তিনি তাকে বের করে আনেন এবং তাকে মৃত অবস্থায় পান।
বনি কাপুর জানান, মনে হয়েছিলো তার পুরো দুনিয়াই ডুবে গিয়েছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন