শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ ১০:৪৭:৫৮ এএম

হবু বরের সঙ্গে ফোনে কথা বলতে বলতে ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হলেন যুবতি

আন্তর্জাতিক | শনিবার, ১০ মার্চ ২০১৮ | ০৪:১৩:৫৭ পিএম

দীর্ঘদিনের প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ের কথা পাকা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু বিয়ের আগেই প্রেমিকের সঙ্গে ফোনে কথা বলতে বলতে গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হলেন এক যুবতি। ঘটনাটি ভারতের দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরের।

সোনারপুরের লস্করপুর পেয়ারাবাগানের বাসিন্দা রবিন সর্দার। তাঁর মেয়ে চন্দ্রিমা সর্দারের সঙ্গে কলেজ পড়ার সময় থেকেই বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে জয়নগরের বাসিন্দা রামপ্রসাদের। ধীরে ধীরে বন্ধুত্ব গাঢ় হয়।

কলেজে পড়ার পাঠ চুকিয়ে সম্প্রতি একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করছিলেন রামপ্রসাদ। এরপরই দুই পরিবার কথা বলে চন্দ্রিমা ও রামপ্রসাদের বিয়ে পাকা করে। খুব শিগগিরই তাঁদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিয়ের পিঁড়িতে ছাদনাতলায় যাওয়ার আগেই চরম সিদ্ধান্ত নিলেন চন্দ্রিমা।

কিন্তু কেন? জানা যাচ্ছে, দীর্ঘদিনের সম্পর্কে সম্প্রতি টানাপোড়েন চলছিল। মৃতদেহের পাশ থেকেই একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিস। সুইসাইড নোটে হবু স্বামী রামপ্রসাদের দিকেই সরাসরি অভিযোগের আঙুল তুলেছেন চন্দ্রিমা। শুধু তাই নয়, চন্দ্রিমার ফোনের মেসেজ থেকেও একথা স্পষ্ট যে প্রেমিকের সঙ্গে মনোমালিন্য চলছিল তাঁর।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এদিন সকালে সোয়া ৯টা নাগাদ বাড়ি থেকে বেরন বাবা রবিন সর্দার। সেইসময় বাড়িতে আর কেউই ছিলেন না। বেলা ১১টা নাগাদ ফিরে এসে রবিনবাবু দেখেন, ঘরের সব দরজা-জানলা বন্ধ। জানলা ফাঁক করতেই তাঁর চোখে পড়ে মেয়ের ঝুলন্ত দেহ। এরপরই দরজা ভেঙে দেহ উদ্ধার করেন তিনি। চিকিত্সক এসে চন্দ্রিমাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

মৃতার পরিবারের লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সোনারপুর থানার পুলিস। এদিকে এই ঘটনার পর থেকেই পলাতক প্রেমিক ও তাঁর পরিবার।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন