সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ ০৪:৫৭:২৪ পিএম

ছিঃ ছিঃ শামির মোবাইলে এসব কি? স্ত্রী হাসিন দেখালেন সেই সব নোংরা...

খেলাধুলা | রবিবার, ১১ মার্চ ২০১৮ | ০৬:৪৬:৪৮ এএম

ছিঃ ছিঃ শামির মোবাইলে এসব কি? স্ত্রী হাসিন দেখালেন সেই মোবাইল। সোনালি রঙের একটি মোবাইল ফোন। আর তার ধাক্কাতেই এক সপ্তাহের মধ্যে দাম্পত্য-দূরত্ব বেড়ে গিয়ে যুযুধান প্রতিপক্ষে পরিণত হয়েছেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি ও তার স্ত্রী হাসিন জাহান।

কলকাতার লালবাজারের অভিজ্ঞ পুলিশ অফিসাররাও মনে করছেন, চুপ থেকেও হঠাৎ কেন নিজের তারকা স্বামীর বিরুদ্ধে ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হলেন হাসিন জাহান, তার উত্তর লুকিয়ে রয়েছে হঠাৎ করে পাওয়া ওই মোবাইল ফোনের মধ্যে।

লালবাজারে গিয়ে গোয়েন্দা প্রধান প্রবীণ ত্রিপাঠির কাছে বৃহস্পতিবার শামির স্ত্রী পুলিশকে যে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছেন, তাতে তিনি লিখেছেন, ‘দিল্লি ডেয়ারডেভিলস থেকে ওই ফোনটি উপহার পায় আমার স্বামী’। দিল্লি ডেয়ারডেভিল্‌স এ দিন জানিয়েছে, তারা শামিকে নিয়ে পরিস্থিতির উপর নজর রাখছে। বোর্ডের চুক্তি স্থগিত হওয়ার পরে দিল্লির এই বক্তব্য তার আইপিএল আকাশেও কালো মেঘ তৈরি করছে বলেই মনে হচ্ছে।

ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে ইংল্যান্ডের নম্বর নিয়ে। হাসিনের মুখে শোনা গিয়েছে জনৈক ‘মোহাম্মদ ভাই’-এর নাম। তার বক্তব্য, ‘মোহাম্মদ ভাই’ থাকেন ইংল্যান্ডের ম্যাঞ্চেস্টারে। তার একটি নম্বর রয়েছে। সেই নম্বরটিও ইংল্যান্ডের। সেই নম্বরে ফোন করার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু বারবারই নম্বরটি ‘সুইচ্ড অফ’ পাওয়া যায়।

প্রশ্ন হচ্ছে, হাসিনের হাতে আসা ফোনটি কে ব্যবহার করতেন? ইংল্যান্ডের নম্বর কেন তাতে? শামি নিজে বৃহস্পতিবার কয়েকটি নিউজ চ্যানেলকে বলেছেন, তিনিও চান সম্পূর্ণ তদন্ত হোক। ‘সব কিছুর প্রমাণ দিতে হবে ওকেই,’ স্ত্রীর অভিযোগ সম্পর্কে বলেন তিনি। ক্রিকেটীয় তদন্তের দিক থেকে কিন্তু তাকেও কিছু অস্বস্তিকর প্রশ্নের মুখে পড়তে হতে পারে।

তার মধ্যে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন হচ্ছে, ইংল্যান্ডের নম্বরটি কার এবং শামির সঙ্গে তার যোগ থাকলে কীসের যোগ রয়েছে? রহস্য আরও বাড়িয়ে দিয়ে শামির স্ত্রী বলেছেন, ‘আমি জানতামই না যে, এ রকম একটি ইংল্যান্ডের নম্বর শামির কাছে রয়েছে।’

লালবাজারে জমা দেওয়া অভিযোগপত্রে এই তথ্য জানিয়ে ইংল্যান্ডের সেই নম্বরটিও জমা দিয়েছেন হাসিন। তার আইনজীবী জাকির হুসেন বলছেন, ‘পুলিশকে সব জানানো হয়েছে। আশা করি, সব রহস্যের জট খুব শীঘ্রই খুলবে।’

হাসিনের অভিযোগ, এই ফোনেই দেশ-বিদেশের বিভিন্ন মহিলার সঙ্গে রসালাপ চলতো শামির। এই ফোন থেকেই উঠে আসছে আরও দু’জনের নাম। জনৈক ‘কুলদীপ ভাই’ এবং করাচির ‘আলিশবা’ নামে এক তরুণী। এই ‘কুলদীপ ভাই’ বিভিন্ন ক্রিকেট সফর চলাকালীন শামির কাছে সুন্দরী নারীদের পাঠাত বলে অভিযোগ হাসিনের। আর আলিশবা করাচিতে থাকেন। তাকেই বিয়ে করতে চান শামি, অভিযোগ করছেন হাসিন।

এ ছাড়াও হাসিনের অভিযোগ, বিভিন্ন নারীর সঙ্গে অশ্লীল ‘চ্যাট’ পাওয়া গিয়েছে মোবাইলে। সেই সব কথোপকথন একটি বিশেষ নাম দিয়ে আলাদা করে রেখে দিয়েছেন হাসিন। ক্রিকেট দুনিয়া যাকে চেনে সুইংয়ের সুলতান হিসেবে, তিনি এখন স্ত্রীর মোবাইলে আটক হয়ে আছেন ‘শামি গন্দা (নোংরা) চ্যাট’ নামে! আনন্দবাজার।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন