শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ ০৬:৩৪:৫৬ এএম

আবারো ছাত্রলীগ নেতা কানন ও সজলের বহিষ্কার দাবি

মো. নুরুজ্জামান খান | শিক্ষাঙ্গন | রবিবার, ১১ মার্চ ২০১৮ | ০৪:৩৫:৫২ পিএম

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) নাট্যকর্মী মইনুলের ওপর হামলার ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগ নেতা কানন ও সজলের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোট। আজ রোববার দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এক সাংস্কৃতিক সমাবেশে তারা এ দাবি জানান।

সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্দেশে বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত নাট্যকার অধ্যাপক মলয় ভৌমিক বলেন, ‘ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অন্যতম দায়িত্ব হচ্ছে শিক্ষার্থীদেরকে সহশিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করানো। হামলাকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তির উদ্যোগ না নিয়ে আপনারা কি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি তথা শিক্ষার দ্বার রুদ্ধ করছেন না? বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অন্যতম দায়িত্ব-কর্তব্য পালনের প্রক্রিয়াটিকে বাধাগ্রস্ত করছেন না?’

মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক শাহ্ধসঢ়; আজম শান্তনু বলেন, ‘এটা খুবই হতাশাজনক যে একসময় আমরা যাদেরকে সঙ্গে নিয়ে একসাথে মৌলবাদ, সন্ত্রাসবাদ, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে লড়াই করেছি। এখন তাদেরই একজন অন্যজনকে আঘাত করছে।

এ সময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘বর্তমানে যারা আপনাদের সাথে সংস্কৃতিকর্মী হিসেবে আছে, তারা সত্যিই প্রগতিশীলতার আদর্শকে ধারণ করে কি না তা যাচাই করতে হবে।’

জোটের সভাপতি ইন্দ্রজিৎ কুমারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অন্তর আলীর সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. সরকার সুজিত কুমার, দর্শন বিভাগের অধ্যাপক এসএম আবু বকর, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আল জাবির, রাবি কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি আব্দুল মজিদ অন্তর, সংস্কৃতিকর্মী কামারুল্লাহ সরকার কামাল প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ৬ মার্চ রাত আটটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও অনুশীলন নাট্যদলের কর্মী মইনুল ইসলামকে মারধর করেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কানন ওকলা অনুষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সজল। এর পর থেকে কানন ও সজলের বহিস্কার দাবি জানিয়ে আসছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো।

কানন এর পুর্বে ডেইলি স্টার এর সাংবাদিক আরাফাত রহমানকে মারধরের
ঘটনায় বহিস্কার হয়েছিলেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন