রবিবার, ২০ মে ২০১৮ ০৪:১৯:১২ পিএম

টি-২০ তে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ছক্কা

খেলাধুলা | সোমবার, ১২ মার্চ ২০১৮ | ০৩:৫২:৪৫ এএম

দুই ইনিংস মিলে ছক্কা হয়েছে বাইশটি। ছক্কার বৃষ্টির ম্যাচে ছক্কার রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশ। ২১৫ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে টাইগার ব্যাটসম্যানরা হাঁকিয়েছে ১২ টি ছক্কা। এই প্রথম বাংলাদেশের ছক্কার সংখ্যা ছুঁয়েছে দুই অঙ্কের ঘর। বাংলাদেশের টি-২০ ইতিহাসে এটিই সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড।
মুশফিকের ছক্কা!

টি-২০ তে এর আগে তিনটি ম্যাচে আটটি ছক্কা মারলেও কখনো দশটি ছক্কা ছিল না বাংলাদেশের ইনিংসে। ২০১৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে আট ছক্কা হাঁকিয়েছিল বাংলাদেশ। এছাড়া ২০১৩ সালের নভেম্বরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এবং ২০১৪ সালে নেপালের বিপক্ষে আটটি করে ছক্কা হাঁকাতে সক্ষম হয়েছিল বাংলাদেশ। এছাড়া সাতটি করে ছক্কা রয়েছে আট ইনিংসে।

সীমিত ওভারের ক্রিকেটেও বাংলাদেশের জন্য এক ইনিংসে সর্বোচ্চ সংখ্যা এটি। এর আগে ওয়ানডেতে দশ ছক্কা হাঁকিয়েছিল বাংলাদেশ।

১২ ছক্কার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ছক্কা এসেছে ওপেনিংয়ে লিটন কুমার দাসের ব্যাট থেকে। ১৯ বলে ৪৩ রানের এক টর্নেডো ইনিংসে শ্রীলঙ্কান বোলারদের বল পাঁচবার শুন্যে ভাসিয়ে সীমানার বাইরে ফেলেছেন লিটন দাস। ব্যাট হাতে রীতিমতো তাণ্ডব চালান তিনি। টি-২০ তে এক ইনিংসে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ডেও ভাগ বসিয়েছেন লিটন দাস।

টি-২০ তে এক ইনিংসে বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ছক্কার সংখ্যা পাঁচ। লিটন দাসের আগে এক ইনিংসে পাঁচ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড রয়েছে তামিম ইকবাল, নাজিমউদ্দিন ও জিয়াউর রহমানের। ২০০৭ সালে নাইরোবিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫০ বলে ৮২ রানের ইনিংস খেলার পথে পাঁচ ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন নাজিমউদ্দিন। ২০১২ সালে বেলফাস্টে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ১৭ বলে ৪০ রানের ইনিংসে পাঁচ ছক্কা মেরেছিলেন জিয়াউর। ২০১৬ সালের টি-২০ বিশ্বকাপে ওমানের বিপক্ষে তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি হাঁকানোর ম্যাচে পাঁচ ছক্কা মেরেছিলেন।

লিটন দাসের পাঁচ ছক্কা ছাড়া মুশফিকুর রহিমের ব্যাট থেকে এসেছে তিনটি। একটি করে ছক্কা মেরেছেন তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন