শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০২:১৮:৫৪ পিএম

পিএসএল ম্যাচে আজব এক লড়াই চালালেন আফ্রিদি

খেলাধুলা | সোমবার, ১২ মার্চ ২০১৮ | ১২:৪৩:৪০ পিএম

জয়ের জন্য প্রয়োজন ১৬৪ রানের। লাহোর কালান্দার্স তুললেন ১৬৩ রান। বাকি ১ রান নিতে পারলেন না সোহেল আখতার এবং গুলজাইর সাদাফ। দু’দলেই স্কোর ১৬৩ করে। সুতরাং, ম্যাচ টাই। টি-টোয়েন্টিতে টাই ম্যাচের চেয়ে ফলটা জরুরি। পিএসএল ম্যাচে আজব এক লড়াই চালালেন আফ্রিদি।

সুতরাং, খেলা গড়ালো সুপার ওভারে। এ পর্যায়ে এসে সুনিল নারিনের সঙ্গে এক বলের লড়াই হলো শহিদ আফ্রিদির। এই এক বলেই ছক্কা মারলেন পাকিস্তানের বুমবুম। তাতে ব্যবধানটাই কমলো শুধু লাভের লাভ কিছুই হলো না। নারিনের লাহোর কালান্দার্সের কাছে হারলো আফ্রিদির করাচি কিংস।

দুবাইতে সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করতে নামে লাহোর কালান্দার্স। করাচির বোলার মোহাম্মদ আমির। ফাখর জামান আর অ্যান্টন ডেভচিসকে এক ওভারে ব্যাট করতে পাঠানো হয়; কিন্তু প্রথম বলেই উইকেট হারিয়ে বসলো লাহোর। মিডউইকেটে ঠেলে দিয়েই এক রান নিয়ে নেন ফাখর। ফিল্ডার প্রথমবার বল ছেড়ে দিলে দ্বিতীয় রানের জন্য দৌড় দেন ফাখর। এখানেই ঘটলো বিপদ। সরাসরি থ্রোতে স্ট্যাম্প ভাঙলো ফাখরের। রানআউট হয়ে গেলেন তিনি।

দ্বিতীয় বলে আমির দিলেন একটি ওয়াইড। তৃতীয় বলে লেগ বাই। পরের বলে আবারও ওয়াইড। এর পরের বলে ১ রান নিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। পরের বলে আরও এক রান ডেভচিসের। ওভারের পঞ্চম বলটিতে একটি বাউন্ডারি মারলেন ম্যাককালাম। শেষ বলে এসে ১ রান নিলেও দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে রান আউট হলেন ম্যাককালাম। তবুও শেষ পর্যন্ত সুপার ওভারে ১১ রান তুলতে সক্ষম লাহোর কালান্দার্স।

জবাব দিতে নামেন করাচির দুই ব্যাটসম্যান ল্যান্ডল সিমন্স আর কলিন ইনগ্রাম। বোলার সুনিল নারিন। প্রথম বলে কোনো রান নিতে পারলেন না সিমন্স। দ্বিতীয় বলে নিলেন ১ রান। তৃতীয় বলে ইনগ্রাম ক্যাচ তুলে দেন ফরোয়ার্ড ফাইন লেগে। ঝাঁপিয়ে পড়ে অসাধারণ ভঙিমায় ক্যাচটি ধরলেন মিচেল ম্যাকক্লেনঘান। পরের বলে সিমন্স আবারও দিলেন ডট। রান নিতে পারলেন না। পঞ্চম বলে ১ রান নিয়ে স্ট্রাইকে পাঠালেন আফ্রিদিকে। ততক্ষণে প্রায় জয় নিশ্চিত হয়ে গেছে লাহোরের। শেষ বলেও ছক্কাও মেরেছিলেন আফ্রিদি। তাতে বরং ব্যবধানই কমলো শুধু। হার মানতে হলো ৩ রানের ব্যবধানে।

এর আগে দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে লেন্ডল সিমন্স আর বাবর আজমের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে ১৬৩ রান সংগ্রহ করে করাচি কিংস। ৩৯ বলে ৫৫ রান করেন সিমন্স। ৪৯ বলে ৬১ রান করেন বাবর আজম। সোহেল খান ৩৪ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট।

জবাব দিতে নেমে আগা সালমানের ৪৫ বলে ৫০ রানের ওপর ভর করে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৩ রান সংগ্রহ করে করাচি লাহোর কালান্দার্সও। টাই হওয়াতেই সুপার ওভারে নিষ্পত্তি হলো ম্যাচ। এ নিয়ে পিএসএলে এটা লাহোরের দ্বিতীয় জয়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন