শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮ ০২:৪২:৩৭ পিএম

মর্মান্তিকঃ কাজের বুয়া চুরি করে নিয়ে গেল নিহত কেবিন ক্রুর মেয়েকে

জাতীয় | মঙ্গলবার, ১৩ মার্চ ২০১৮ | ০২:৩৫:২৯ এএম

নেপালে দুর্ঘটনার শিকার ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমানে বিধ্বস্ত হওয়ার পর পরই কেবিন ক্রু নাবিলা ২ বছরের মেয়েটিকে চুরি করে পালিয়েছে তার বাসার কাজের বুয়া।

জানা যায়, নিহতের খবর শোনার পর নাবিলার বাসার কাজের বুয়া ছোট্ট বাচ্চাটিকে নিকে পালিয়ে যায়। কেবিন ক্রু নাবিলার একমাত্র ২ বছরের মেয়ে। প্রতিদিন এর মতো আজও বাসার কাজের বুয়ার কাছে বাবুটাকে রেখে ফ্লাইট এ চলে যায়।

কিন্ত বিমান ক্রাস করার সংবাদ শুনে কাজের বুয়া মেয়েটিকে চুরি করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ফেসবুক সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাবিলার মেয়েকে নিয়ে নিচের স্ট্যাটাসটি ভাইরাল হয়। স্ট্যাটাসটি লেখা..

“মর্মান্তিক....
বন্ধুরা ফুটফুটে যেই পুতুলটা দেখছো সে আর কেহ নয়। আজ ইউ এস বাংলার যে ফ্লাইট টি ক্রাস করেছে তার কেবিন ক্রু নাবিলার একমাত্র ২ বছরের মেয়ে। প্রতিদিন এর মতো আজও বাসার কাজের বুয়ার কাছে বাবুটাকে রেখে ফ্লাইট এ চলে যায়।

দূঃ সংবাদ হচ্ছে আজ বিমান ক্রাস করার সংবাদ শুনে কাজের বুয়া মেয়েটি কে চুরি করে পালিয়ে যায়। থানায় মামলা করা হয়েছে।

যদি আমাদের কোন বন্ধু বাবুটাকে কোথাও দেখ তাহলে নিকটস্থ থানায় / 999 অথবা ওর বড় চাচা
( বাবলু ভাই 01917336340 )
বা আমাকে ০১৭০৬ ০০১৯৫০ / ইনবক্স করে জানালে তোমাদের কাছে কৃতজ্ঞ থাকবো”

উল্লেখ্য, ঢাকা থেকে নেপালের কাঠমান্ডুর উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া বাংলাদেশের বেসরকারি বিমান সংস্থার ইউএস বাংলার একটি বিমান কাঠমান্ডু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয়ে ৫০ জন নিহত হয়েছেন।

বেলা ১২টা ৫১মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৬৭জন যাত্রী নিয়ে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। বিমানটি দুপুর ২টা ২০মিনিটে বিধ্বস্ত হয়।

ইতোমধ্যে নেপালের ত্রিভুবন এয়ারপোর্টের কাছে দুর্ঘটনার শিকার ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের যাত্রীদের মৃতদেহের ছবি প্রকাশ করতে শুরু করেছে নেপালি গণমাধ্যম।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন