মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ১২:০৫:০৭ এএম

বিকেলে দেশে ফিরছেন জীবন ফিরে পাওয়া শেহরিন

জাতীয় | বৃহস্পতিবার, ১৫ মার্চ ২০১৮ | ০১:২৩:৩৬ পিএম

নেপালের কাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় বেঁচে যাওয়া শেহরিন আহমেদ বিকেলে দেশে ফিরছেন। হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পাওয়ায় বিকেলেই তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শেহরিন আহমেদের খালাতো ভাই ইমন জানান, হাতপাতাল কর্তৃপক্ষ অনাপত্তি দিয়েছে। বৃহস্পতিবার নেপালের স্থানীয় সময় দেড়টায় বিজি-০০৭২ ফ্লাইটে ঢাকা উদ্দেশে রওনা দেব।

তিনি আরও বলেন, ঢাকায় বিকেল সোয়া ৩টা পৌঁছানোর কথা রয়েছে। ঢাকায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হবে।

জানা গেছে, বিমান দুর্ঘটানায় শেহরিন আহমেদের পা ভেঙে গেছে এবং শরীরের ৮ শতাংশ পুড়ে গেছে। সে কাঠমান্ডু মেডিকেল কলেজের (কেএমসি) প্ল্যাস্টিক সার্জারি অ্যান্ড বার্ন ইউনিট-৩ এ চিকিৎসাধীন ছিলেন।

শেহরিন আহমেদ ছাড়া আরও তিন বাংলাদেশিকে কেএমসি হাসাপাতাল কর্তৃপক্ষ অনাপত্তি দিয়েছে। তারা হলেন- মেহেদী হাসান, কামরুন্নাহার স্বর্ণা ও আলমুন নাহার এনি।

এ বিষয়ে নেপালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস জানান, আহত শেহরিন আহমেদকে বৃহস্পতিবার দেশে নেয়া হচ্ছে। সময় মতো বিমান আসলে নেপাল সময় দেড়টায় ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবে। এছাড়া বাকি তিনজনের কাগজপত্র ঠিক করা হচ্ছে। সব কিছু ঠিক থাকলে তাদেরকে শুক্রবার দেশে পাঠানো হবে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (১২ মার্চ) ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বিএস-২১১ নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুর্ঘটনায় পতিত হয়। ৬৭ যাত্রী ও চার ক্রুসহ দুপুর ২টা ২০ মিনিটে বিমানটি বিমানবন্দরের পাশের একটি ফুটবল মাঠে বিধ্বস্ত হয়। এতে ৫১ যাত্রীর প্রাণহানি ঘটে। বাকিদের উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতলে ভর্তি করা হয়েছে।

বিমানটিতে মোট ৬৭ যাত্রীর মধ্যে বাংলাদেশি ৩২ জন, নেপালি ৩৩ জন, একজন মালদ্বীপের ও একজন চীনের নাগরিক ছিলেন। তাদের মধ্যে পুরুষ যাত্রীর সংখ্যা ছিল ৩৭, মহিলা ২৮ ও দু’জন শিশু ছিল।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন