শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৭:২১:৪০ এএম

মানজারুলের শোকের শক্তিতেই জ্বলে উঠবে বাংলাদেশ

খেলাধুলা | শুক্রবার, ১৬ মার্চ ২০১৮ | ০৩:১৮:৪৮ পিএম

ক্যালেন্ডারের পাতায় ১৬ মার্চ দিনটা স্মরণীয় হয়েই থাকবে। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জন্য দিনটি ছিল শোককে শক্তি বানানোর বিশাল এক উপলক্ষ্য।

১১ বছর আগে, ২০০৭ সালের ১৬ মার্চ এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশের ক্রিকেট হারিয়েছিল মানজারুল ইসলাম রানার মতো প্রতিশ্রুতিশীল এক তারকাকে।

১৭ মার্চ পোর্ট অব স্পেনে এসেছিল সেই ঐতিহাসিক জয়। বাংলাদেশের কাছে ৫ উইকেটে হেরে প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায় নিয়েছিল রাহুল দ্রাবিড়ের ভারত। রানাকে স্মরণ করে হাতে কালো ব্যান্ড নিয়ে মাঠে নামা বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা সেদিন দুর্দান্ত নৈপুণ্যে নিজেদেরকেই ছাপিয়ে গিয়েছিলেন।

আজ ১৬ মার্চ। সালটা ২০১৮। শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত নিদাহাস ট্রফিতে ‘মাস্ট উইন ম্যাচে’ আজ স্বাগতিকদের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। আজকের ম্যাচে জয় পরাজয় বাংলাদেশের ফাইনাল ভাগ্য নির্ধারণ করবে। আর ভাগ্য নির্ধারণী ম্যাচে মানজারুলকে হারানোর শোক আবারো শক্তি হয়ে বাংলাদেশকে বিজয় এনে দেবে এমনটাই ক্রিকেট ভক্তদের প্রত্যাশা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট সাপোর্টারস এসোসিয়েশন (BCSA) ফেইসবুক গ্রুপে রাকিব আল হাসান নামের একজন লিখেছেন,
 রানার মৃত্যুদিনে আজ আবার মাঠে নামছে বাংলাদেশ। রানার মৃত্যুদিনে আজ আবারও জ্বলে উঠবে বাংলাদেশ! ২০০৭ সালের এই দিনে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান প্রতিশ্রুতিশীল ক্রিকেটার মানজারুল ইসলাম রানা। পরদিনই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ। রানার মৃত্যুর দুঃসংবাদটি তাই বিমূঢ় করে দিয়েছিল গোটা বাংলাদেশ দলকে। কিন্তু সেই শোককে বাংলাদেশ দল শক্তিতে পরিণত করেছিল। বিশ্বকাপে যে ভারত-বধ করেছিল বাংলাদেশ। ২০১২ সালে রানার ঠিক মৃত্যুদিনে আরেকবার ভারত-বধ করেছিল বাংলাদেশ।

ইনজুরি কাটিয়ে দলের সঙ্গে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার বিকেলে শ্রীলঙ্কায় পৌঁছেছেন সাকিব। এর আগে, ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ফাইনালে ইনজুরিতে পড়েছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তার জায়গায় ডাক পান লিটন দাস।

ব্যথা সেরে ওঠায় এখন বেশ স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন সাকিব। বোলিং, ব্যাটিং ও ফিল্ডিংও করতে পারছেন সাবলীলভাবে। ম্যাচ খেলার মতো ফিট বলেই তাকে শ্রীলঙ্কায় পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

বাংলাদেশ সম্ভাব্য একাদশ:
১. তামিম ইকবাল
২. সৌম্য সরকার
৩. লিটন দাস
৪. মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক)
৫. মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ
৬. সাকিব আল হাসান
৭. সাব্বির রহমান
৮. মেহেদি হাসান মিরাজ/নাজমুল ইসলাম অপু
৯. মোস্তাফিজুর রহমান
১০. রুবেল হোসেন
১১.আবু হায়দার রনি।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন