শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮ ০৪:৫৯:৫৪ পিএম

আবারো বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত নগরীর তালিকায় ঢাকা দ্বিতীয়

নগর জীবন | শুক্রবার, ২৩ মার্চ ২০১৮ | ০২:২৮:০২ পিএম

বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত নগরীর তালিকায় এবারও ঢাকা দ্বিতীয়। আর প্রথম অবস্থানে রয়েছে নেপালের কাঠমান্ডু। ইউএস এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (একিউআই) জরিপে এই তথ্য উঠে এসেছে। সূচকে এর আগেও ঢাকার অবস্থান ছিল দ্বিতীয়তে। এবার ঢাকার বাতাসকে বলা হয়েছে ‘ভেরি আনহেলদি’ বা অত্যন্ত অস্বাস্থ্যকর। বুধবার প্রকাশিত এই সূচকে ঢাকার স্কোর ২৩৮।

যে কোনো শহর বা দেশের বাতাসের প্রতিদিনের গুণগত মান নির্ধারণে কাজ করে এনভায়রনমেন্টাল প্রটেকশন এজেন্সি। তারাই এই সূচক প্রণয়ন করে। এ তালিকার শীর্ষে থাকা অর্থাৎ এক নম্বর শহর কাঠমান্ডুর স্কোর হলো ২৬৪। স্মার্টফোনের একটি এপ্লিকেশন এয়ার ভিসুয়াল দিয়ে বাতাসের ডাটা সংগ্রহ করে এই সূচক করা হয়। এ হিসাবে সবচেয়ে দূষিত থেকে পর্যায়ক্রমে ১০টি শহর হলো নেপালের কাঠমান্ডু, বাংলাদেশের ঢাকা, পাকিস্তানের লাহোর, চীনের শেনিয়াং, বেইজিং, ভারতের কলকাতা, থাইল্যান্ডের চিয়াংমাই, চীনের চেংদু, ভারতের দিল্লি ও চীনের সাংহাই। এর মধ্যে ঢাকা হলো বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ শহরগুলোর অন্যতম। এখানে দীর্ঘদিন বায়ুদূষণের খবর আসছে। তবে সবচেয়ে বেশি বায়ুদূষণের শহরে প্রায় পৌঁছে গেছে ঢাকা। এর চার পাশে আছে ইটভাটা। রাস্তায় জ্বালানি পুড়ছে গাড়িতে। তা থেকে বাতাসে উচ্চমাত্রায় ছড়িয়ে পড়ছে সালফার। বায়ুদূষণের জন্য নির্মাণ কাজকে বড় ধরনের দূষণের নিয়ামক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। অক্টোবর থেকে এপ্রিল পর্যন্ত এখানে বাতাসের গুণগত মানের আরও অবনতি হয়। তবে বর্ষাকালে তার কিছুটা উন্নতি হয়। বিশেষজ্ঞরা বলেন, এ পরিস্থিতি খুবই গুরুতর।

এদিকে ১৮ মার্চ প্রকাশিত ইউএস এনভায়রনমেন্ট প্রটেকশন এজেন্সির জরিপেও দূষিত শহরের তালিকায় ঢাকা শীর্ষে রয়েছে। ওই তালিকায় বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা হলো বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত নগরীর মধ্যে চতুর্থ। সূচক মূল্যায়ন যার ১৯৫। এ জরিপেও সবচেয়ে বেশি দূষিত নগরী হিসেবে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুকে দেখানো হয়েছে।

এর মূল্যায়ন ২০৮। সূচক অনুযায়ী, বিশ্বের বিভিন্ন শহরে বায়ুদূষণ ঘণ্টায় ঘণ্টায় এমনকি দিন ভিত্তিতেও পরিবর্তন হয়। উল্লেখ্য, এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে একই সূচকে ঢাকা ছিল সবচেয়ে দূষিত শহর। তখন বাংলাদেশের মূল্যায়ন ছিল ৩৩৯। জনস্বাস্থ্যে ঝুঁকি বাড়ানো বুঝাতে ছয়টি ক্যাটাগরিতে এ সূচক প্রণয়ন করা হয়েছে। কোনো শহর যদি এই সূচকে ৩০০ অতিক্রম করে তাহলে সেখানকার বাতাসের গুণগত মানকে জনস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

স্ট্যাটিসটিকস অব বাংলাদেশ ডিপার্টমেন্ট অব এনভায়রনমেন্ট দেখাচ্ছে যে, বাতাসের গুণগত মানের সূচক ঢাকায় ১১ মার্চ ছিল ৫০১ স্কোরে। একই দিনে এই স্কোর গাজীপুরে ছিল ৩৩৮ এবং নারায়ণগঞ্জে ছিল ৩০৮। দেশে সব শহরের মধ্যে মার্চে সবচেয়ে বেশি বায়ুদূষণ রেকর্ড করা হয় নারায়ণগঞ্জে। সেই স্কোর ছিল ৫৩৮। বিশেষজ্ঞদের মতে, শুষ্ক মৌসুমে বাতাসে সাধারণত ধুলোবালির পরিমাণ অন্য সময়ের তুলনায় পাঁচ গুণ বৃদ্ধি পায়। নির্মাণ প্রতিষ্ঠান থেকে ছড়িয়ে পড়া ধুলোবালি, ময়লায় এই পরিস্থিতিকে আরো খারাপ করে তোলে। শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে এসব ধুলোবালি শরীরে প্রবেশ করে শ্বাসযন্ত্রের মারত্মক ক্ষতি করতে পারে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন