শুক্রবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৮ ০৩:০০:২২ এএম

মার্কিন বিমানবন্দরে হেনস্থা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে

আন্তর্জাতিক | বুধবার, ২৮ মার্চ ২০১৮ | ০২:২৬:৪০ পিএম

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খাকান আব্বাসিকে হেনস্থার অভিযোগ ওঠেছে নিউ ইয়র্ক জেএফকে বিমানবন্দরের কর্মীদের বিরুদ্ধে। তার সাথে সৌজন্যমূলক আচরণ করা হয়নি। একেবারে সাধারণ নাগরিকের মতো তার পোশাক খুলে তল্লাশি করা হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠেছে।

পাকিস্তান সংবাদমাধ্যমের দাবি, পোশাক খুলে তল্লাশি করা হয়েছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে। পাকিস্তানের টেলিভিশন চ্যানেলে প্রদর্শতি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, সিকিউরিটি চেক শেষ হয়ে গেলে বিমানবন্দর থেকে বেরনোর সময় পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীর হাতে কোট ও ব্যাগ ছিল। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল হয়েছে।

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, গত সপ্তাহে ব্যক্তিগত সফরে আমেরিকায় গিয়েছিলেন আব্বাসি। তিনি তাঁর বোনের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন বলে জানা যাচ্ছে।

কেন পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীকে এভাবে পোশাক খুলে তল্লাশি করা হলো, তা নিয়ে সরব হয়েছে পাক সংবাদমাধ্যম। কোনো দেশের সরকারপ্রধানকে এভাবে সাধারণের মতো করে তল্লাশি করা যায় কি না, সে ব্যাপারে প্রশ্ন তুলেছে তারা।
যদিও মার্কিন প্রশাসন সেই অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়ে জানিয়েছে, যা হয়েছে তা নিছকই নিয়মরক্ষার তল্লাশি।

এই মুহূর্তে পাকিস্তানের সঙ্গে আমেরিকার কূটনৈতিক সম্পর্ক মোটেই ভালো নয়। গতকাল, মঙ্গলবারই পাকিস্তানের সাতটি সংস্থাকে মার্কিন সুরক্ষার পক্ষে ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করেছে ট্রাম্প সরকার। এই পরিস্থিতিতে আব্বাসির ঘটনা নতুন বিতর্ক তৈরি করতে পারে বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা।

গত বছরের আগস্টে নওয়াজ শরিফকে সুপ্রিম কোর্ট অযোগ্য ঘোষণা করার পর আব্বাসি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

গত সপ্তাহের নিজের অসুস্থ বোনকে দেখতে আমেরিকায় ব্যক্তিগত সফরে গিয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। তবে সেখানে গিয়ে অনির্ধারিত এক বৈঠকে তিনি মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সঙ্গে মিলিত হন। বৈঠকে পেন্স বলেন, সন্ত্রাসবাদী দলগুলির পৃষ্ঠপোষকতার ঘটনায় আরো সজাগ ও সচেতন হতে হবে পাকিস্তানকে।

এই মন্তব্যের সমালোচনা করার পাশাপাশি মার্কিন সফরে আব্বাসিকে অপমান করা হয়েছে বলে অভিযোগ করে এক পাকিস্তান সাংবাদিককে বলতে শোনা গেছে, 'ব্যক্তিগত সফরে গিয়ে তিনি বলেছেন, সে জন্য তার লজ্জা হওয়া উচিত। তিনি একজন প্রধানমন্ত্রী...তার কাছে কূটনৈতিক পাসপোর্ট রয়েছে...ব্যক্তিগত সফর বলে কিছু হয় না। তিনি দেশকে প্রতিনিধিত্ব করছেন। যখন আপনি ২২ কোটি মানুষকে প্রতিনিধিত্ব করছেন, তখন কিছু প্রোটোকল মানতে হবে।'

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন