সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০১:৪৬:০৩ পিএম

ভোট শুরুর আগেই বিএনপির এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ

জেলার খবর | কুমিল্লা | বৃহস্পতিবার, ২৯ মার্চ ২০১৮ | ১১:৪৬:৪৭ এএম

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার দক্ষিণ শিলমুড়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট শুরুর আগেই বিএনপি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই অভিযোগ করেছেন ক্ষমতাসীন দলের বাইরে থাকা মেম্বার প্রার্থীরাও। বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৮টায় বরুড়া উপজেলার দক্ষিণ শিলমুড়ী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের লগ্নসার কেন্দ্রে গিয়ে এ চিত্র দেখা গেছে।

বিএনপি দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপনারা দেখে যান। শুধু লগ্নসার কেন্দ্রই নয়, ইউনিয়নের অন্যান্য কেন্দ্রেও আমার এজেন্টরা ঢুকতে পারছে না।’

সকাল পৌনে ৮টায় লগ্নসার কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, কেন্দ্রের কোনও কক্ষেই বিএনপি দলীয় চেয়ারম্যান, মেম্বার ও স্বতন্ত্র মেম্বার প্রার্থীদের কোনও এজেন্ট নেই। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো. আবদুল মান্নান বলেন, ‘তারা এখনও আসেনি।’

কিন্তু কেন্দ্রের ১০০ মিটার দূরে ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করা বিএনপিদলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. শাহ আলম এবং ফুটবল নিয়ে নির্বাচন করা স্বতন্ত্র মেম্বার প্রার্থী লিটনসহ কয়েক শতাধিক নারী-পুরুষকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। কারণ জানতে চাইলে মো. শাহ আলম বলেন, ‘আমাকে না জিজ্ঞেস করে উপস্থিত সাধারণ জনগণকে জিজ্ঞেস করুন।’

এ সময় লগ্নসার গ্রামের আবুল হোসেন, আবুল বারেক, সেলিম, কামরুন নাহার, সুফিয়া খাতুনসহ অনেকেই জানান, ২০ বছর ৩ মাস পর আজ এই ইউনিয়নে নির্বাচন হচ্ছে। এতদিন মামলার কারণে নির্বাচন আটকে ছিল। কিন্তু ভোট শুরুর আগেই তাদের কেন্দ্রের সামনে থেকে বিদায় করে দেওয়া হয়েছে। এর জন্য তারা আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ফারুক হোসেনের সমর্থকদের দায়ী করেন।

ইউনিয়নের শিলমুড়ি আর আর হাইস্কুল কেন্দ্রেও একই অবস্থা দেখা গেছে। এখানেও বিএনপি দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সকাল সাড়ে ৮টায় এই কেন্দ্রে একদল দুর্বৃত্ত এসে নৌকা প্রতীকের ২০টি ব্যালট পেপার নিয়ে বাক্সে ঢুকিয়ে দিলে প্রিসাইডিং অফিসার এই ব্যালট বাতিল করে দেন। এই বিষয়ে নির্বাচনের রিটার্নিং আফিসার মোহাম্মদ আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘আমি এখনি ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

এই বিষয়ে কথা বলার জন্য নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করা হাজী মো. ফারুক হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন