শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮ ০৭:১৭:১৯ পিএম

অাপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়লেন পুলিশ কনস্টেবল

জেলার খবর | ঝালকাঠি | সোমবার, ২ এপ্রিল ২০১৮ | ০৫:৩৫:৪৫ পিএম

ফাঁকা রেস্টুরেন্টে প্রেম করতে গিয়ে বেরসিক জনতার হাতে ধরা খেয়েছেন ঝালকাঠির নলছিটি থানার কম্পিউটার অপারেটর কনস্টেবল নাজমুল হাসান সুজন। যদিও প্রেমের সম্পর্ক অস্বীকার করে উল্টো ওই কনস্টেবলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন তার প্রেমিকা। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার এক এসএসসি পরীক্ষার্থী মেয়ের (১৬) সঙ্গে বছর খানেক আগে নলছিটি থানার কনস্টেবল নাজমুল হাসানের (২৮) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর সূত্র ধরে শনিবার দুপুরে প্রেমিকার সঙ্গে ডেটিং করতে অপসোরা ফুড গার্ডেন নামে একটি রেস্টুরেন্টে যান নাজমুল। আর তা টের পেয়ে যায় স্থানীয়রা।

রেস্টুরেন্টে ওই সময় লোকজনের আসা-যাওয়া না দেখে বিষয়টি তাদের কাছে সন্দেহজনক মনে হয়। শেষ পর্যন্ত দু’জনকে অনেকটা 'আপত্তিকর অবস্থায়' ধরে ফেলেন তারা। খবর পেয়ে নলছিটি থানার এসআই (উপ-পরিদর্শক) মিজান ঘটনাস্থলে পৌছে কনস্টেবল নাজমুলকে থানায় নিয়ে যান এবং মেয়েটিকে রিকশাযোগে বাসায় পাঠিয়ে দেন।

স্থানীয়রা জানায়, কনস্টেবল নাজমুল সাড়ে ৩ বছর আগে নলছিটি থানায় যোগদান করেন। এরপর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া একাধিক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন নাজমুল। তার প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হলে মেয়েদের অভিভাবকদের বিভিন্নভাবে হয়রানি করেন তিনি।

তারা অভিযোগ করে বলেন, এর আগেও কর্তৃপক্ষকে ম্যানেজ করে ওই রেস্টুরেন্ট ফাঁকা করে স্থানীয় অনেক মেয়ে নিয়ে 'ফূর্তি' করেছেন নাজমুল। এতদিন ভয়ে কেউ কথা বলেনি।

ধরা পড়ার পর মেয়েটি জানান, নাজমুল নামের ওই পুলিশ সদস্যের সঙ্গে তার কোনো প্রেমের সম্পর্ক নেই। বরং নামজুল তাকে বিয়ে করার জন্য একাধিকবার প্রস্তাব দিয়েছেন। ঘটনার দিন বাসা থেকে বের হতে দেখে নাজমুল তার পিছু নিয়ে ওই রেস্টুরেন্টে আসেন।

পুলিশ কনস্টেবল নাজমুল জানান, সে মেয়েটিকে বিয়ে করতে চান। কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা বলার জন্য তাকে(মেয়ে) ওই রেস্টুরেন্টে ডেকে আনা হয়েছিল।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন