রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ০১:০১:০৭ পিএম

কোটার মতো বিএনপির দাবিও যৌক্তিক : মোশাররফ

রাজনীতি | বৃহস্পতিবার, ১২ এপ্রিল ২০১৮ | ০৮:২১:১১ পিএম

কোটা সংস্কারের দাবির মতো নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিও যৌক্তিক জানিয়ে বিএনপি নেতা মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘জনগণ এই দাবিতে রাস্তায় নামার অপেক্ষায় রয়েছে।’

বৃহস্পতিবার রাজধানীতে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানে এই মন্তব্য করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য।

তিনি বলেন, ‘কোটা পদ্ধতি বাতিলের আন্দোলনের এখান থেকে আমরা শিক্ষা নিতে চাই। যদি যৌক্তিক আন্দোলন হয় সেটি সফল হবেই। আমরা কিসের জন্য আন্দোলন করছি? জনগণের ভোটের অধিকার ও গণতন্ত্রের জন্য। বাংলাদেশের সমস্ত মানুষের স্বার্থ এখানে জড়িত।’

‘কোটা পদ্ধতিতে যেমন ভবিষ্যৎ ছাত্রদের স্বার্থ জড়িত, তাই সবাই নেমেছে। আমাদের যে দাবি, গণতন্ত্র, ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন-এগুলোর সাথে সরাসরিভাবে জনগণ সম্পৃক্ত। জনগণ কিন্তু এটার জন্য এবং সময়ে জন্য অপেক্ষা করে’, বলেন বিএনপির এই নেতা।

‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও গণতন্ত্র উত্তরণের সুষ্ঠু নির্বাচন অপরিহার্য’ শীর্ষক এই সভার আয়োজন করে ‘নাগরিক কণ্ঠ’ নামের একটি সংগঠন।

যেকোনো আন্দোলন সফল করতে ঐক্যবদ্ধ থাকার বিষয়টির গুরুত্ব তুলে ধরে বিএনপির এই নীতি নির্ধারক বলেন, ‘কোন কোন মিডিয়া এই আন্দোলনকে ভালোভাবে প্রকাশ করেনি। কিন্তু তাদের সফলতা প্রমাণ করে, মিডিয়া যদি কিছু ধামাচাপা দিতেও চেষ্টা করে, যৌক্তিক হলে সেটা ধামাচাপা দিয়ে কিছু করা যাবে না।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান কোটা সংষ্কারের আন্দোলনে সমর্থন দেয়াকে যৌক্তিক দাবি করে তিনি বলেন, ‘এখানে কোথায় অন্যায় হয়েছে? বরং যৌক্তিক একটি আন্দোলনে তারেক রহমান সমর্থন দিয়েছেন। এটা যে যৌক্তিক সেটা প্রমাণিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বাধ্য হয়ে, এই আন্দোলনের কাছে মাথা নত করে এবং পরাজয় স্বীকার করে কোটা পদ্ধতি বাতিল করেছেন।’

সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন ছাড়া গণতন্ত্র মুক্ত হবে না মন্তব্য করে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে তার নেতৃত্বে নিরপেক্ষ সরকারের দাবি আদায় করে এবং সংসদ ভেঙ্গে দিয়েই আমরা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যাবো।’

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক সাংবাদিক রমিজ খানের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক প্রকৌশলী মাহমুদুর রহমান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (একাংশের) সভাপতি রুহুল আমিন গাজী প্রমুখ।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন