শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ ০২:৫০:৫২ পিএম

আমরা এসএমই ও ভোক্তা ঋণে অগ্রাধিকার দিচ্ছি

অর্থনীতি | সোমবার, ১৬ এপ্রিল ২০১৮ | ০৮:৪৪:২১ পিএম

এসএমই (ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের) ও ভোক্তা ঋণে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও সিইও রাহেল আহমেদ।

তিনি বলেন, বর্তমানে এ খাতে ব্যাংকের ২২ থেকে ২৪ শতাংশ ঋণ রয়েছে। আগামী ২০২১ সালের মধ্যে এ ঋণ ৪০ শতাংশ করার লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করা হয়েছে।

সোমবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে প্রাইম ব্যাংকের ২৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মিট দ্যা প্রেসে এসব কথা জানান তিনি।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রাইম ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিবুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. গোলাম রব্বানী, মো. তৌহিদুল আলম খান, সৈয়দ ফরিদুল ইসলামসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

রাহেল আহমেদ বলেন, এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যাংকের শাখাগুলোকে শক্তিশালীকরণ, জনশক্তির দক্ষতা উন্নয়ন, প্রযুক্তির ব্যবহারের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে বিভিন্ন জায়গায় কাজ শুরু করেছে ব্যাংকটি।

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমানে ব্যাংকখাত বিপর্যয়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, এটা আমি মনে করি না। তবে বড় একটা চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি আমরা। এ ক্ষেত্রে প্রাইম ব্যাংক স্বচ্ছতা বজায় রাখার চেষ্টা করছে। একটি টেকসই প্রবৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাচ্ছি আমরা। বর্তমানে ব্যাংকটিতে কোনো তারল্য সঙ্কট নেই।

ব্যাংকের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) কমে যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে ব্যাংকটির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, প্রাইম ব্যাংক দীর্ঘ মেয়াদে টেকসই প্রবৃদ্ধি করতে চায়। এ জন্য প্রথমে আমাদের বুকটাকে ক্লিন করার চেষ্টা করেছি। এতে গত বছরে ৩৫৮ কোটি টাকার ঋণ অবলোপন করা হয়। এর জন্য ৩৫৬ কোটি টাকা প্রভিশন (নিরাপত্তা সঞ্চিতি) রাখতে হয়েছে। এছাড়া আগের বছরে ট্রেজারি বিল বন্ড থেকে আয় এসেছিল যেটা ২০১৭ সালে আসেনি। এ কারণে ব্যাংকের ইপিএস কমেছে।

ব্যাংকের বর্তমান অবস্থা তুলে ব্যাংকের কর্মকর্তারা আরো জানান, ২০১৭ সাল শেষে প্রাইম ব্যাংকের আামানত দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৯০১ কোটি টাকা। আর বিনিয়োগ দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৮৩২ কোটি টাকা। বর্তমানে ১৪৬টি শাখা রয়েছে ব্যাংকটির।

ব্যাংকটি ২০১৭ সালে ২ হাজার ২২৩ কোটি ১৬ লাখ টাকার এসএমই ঋণ বিতরণ করেছে, যা মোট ঋণের ৯ দশমিক ২৯ শতাংশ। মোট শিল্পঋণের মধ্যে ব্যাংকটির বৃহৎ শিল্পের শেয়ার রয়েছে ৭০ দশমিক ৭৬ শতাংশ। এছাড়া তৈরি পোশাক খাতে ১০ দশমিক ৫২ শতাংশ এবং ফার্মেসি খাতে এই ব্যাংক ২ দশমিক ৫২ শতাংশ ঋণ বিতরণ করেছে


খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন