রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৬:৫৭:২৬ পিএম

মারা গেলেন রাজীব হোসেন

জাতীয় | মঙ্গলবার, ১৭ এপ্রিল ২০১৮ | ০৯:১০:১২ এএম

দুই বাসের রেষারেষিতে ডান হাত হারানো তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেন মারা গেছেন।

সোমবার দিবাগত রাত ১২টা ৪০ মিনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) মারা যান তিনি।

ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার অবস্থার অবনতি হয়। রাত ১২টা ৪০ মিনিটে তিনি মারা যান।

দুই বাসের রেষারেষিতে গত ৩ এপ্রিল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে গুরুতর আহত হয়েছিলেন তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব হোসেন। বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহনে বাসের চিপায় পড়ে তার ডান হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। গুরুতর আঘাত পান মাথায়। এরপর তাকে শমরিতা হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসা ব্যয় বেশি হওয়ায় তাকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে সরকারি তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছিল। রাজীব সুস্থ হলে তার সরকারি চাকরি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

শৈশবে বাবা মা হারানো পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার বাঁশবাড়ি গ্রামের রাজীব ঢাকার মতিঝিলে খালা জাহানারা বেগমের বাসায় থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পাস করেন। মহাখালীর তিতুমীর কলেজে স্নাতকে ভর্তি হওয়ার পর যাত্রাবাড়ীতে মেসে থেকে পড়াশোনা করছিলেন তিনি। এর পাশাপাশি তিনি একটি কম্পিউটারের দোকানেও কাজ করছিলেন। নিজের পড়াশোনার পাশাপাশি ছোট দুই ভাইয়ের খরচ চালাতে হতো তাকে।

রাজীবের হাত বিছিন্ন করে ফেলার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ৪ এপ্রিল বিআরটিসি বাসের চালক ওয়াহিদ (৩৫) ও স্বজন বাসের চালক খোরশেদকে (৫০) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ৫ এপ্রিল দুজনকে আদালতে তোলা হলে তাদের দুই দিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়। ৮ এপ্রিল দুজনকে পাঠানো হয় কারাগারে। সোমবার দুই আসামির পক্ষ থেকে জামিন আবেদন করা হলেও নামঞ্জুর করেন আদালত।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন