বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৫:১৭:১৬ এএম

২৫ এপ্রিল যাত্রা শুরু হয়েছিল চট্টগ্রাম বন্দরের

জাতীয় | বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮ | ১০:৩৫:৫৫ এএম

আজ বন্দর দিবস। অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে চট্টগ্রাম বন্দর আজ বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রাণকেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।

১৮৮৭ সালে পোর্ট কমিশনার্স অ্যাক্ট প্রণয়ন করে ব্রিটিশ সরকার। ১৮৮৮ সালের ২৫ এপ্রিল তা কার্যকর হয়। তখন থেকে চট্টগ্রাম বন্দর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে। তাই প্রতি বছর ২৫ এপ্রিল বন্দর দিবস উদযাপন করা হয়।

এবার চট্টগ্রাম বন্দরের ১৩১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। দিবসটি পালন উপলক্ষে আজ বুধবার সকালে সিপিএ রিপাবলিকান ক্লাবে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবান, দিনব্যাপী আলোচনা, মতবিনিময়, বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

বন্দর দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ চট্টগ্রাম বন্দরকে এ অঞ্চলের একটি আধুনিক এবং উন্নত বন্দর হিসেবে গড়ে তুলতে বন্দর কর্তৃপক্ষ, ব্যবহারকারীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বাণীতে বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রাণকেন্দ্র চট্টগ্রাম বন্দরের রয়েছে অফুরন্ত সম্ভাবনা। আওয়ামী লীগ সরকার এ বন্দরকে একটি বিশ্বমানের বন্দর হিসেবে গড়ে তুলতে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।

তিনি বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশসমূহকে ব্যবহারের সুবিধা প্রদানের জন্য এটিকে আরো আধুনিক ও আকর্ষণীয় বন্দর হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। এর ফলে বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে আরো লাভবান হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের প্রধান সমুদ্রবন্দর হিসেবে চট্টগ্রামবন্দর শিল্প-বাণিজ্যের প্রসারের পাশাপাশি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। শুধু ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে নয়,এ অঞ্চলে সভ্যতার ক্রমবিকাশে এ বন্দরের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দর দিবস পালন উপলক্ষে গতকাল শহীদ মুন্সি মিলনায়তনে এক মতবিনিময় সভায় চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের (সিপিএ) চেয়ারম্যান কমোডর জুলফিকার আজিজ বলেন, বর্তমান সরকারের ‘ভিশন-২০২১’ অনুযায়ী চট্টগ্রাম বন্দরের কার্যক্রম আরো সহজ করতে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদী কৌশলগত মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

বন্দর চেয়ারম্যান বলেন, বন্দরে ক্রমবর্ধমান কার্গো, কন্টেইনার ও ভেসেল হ্যান্ডেলিং কার্যক্রম বৃদ্ধি মোকাবেলায় সিপিএ স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদী কৌশলগত মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমান সরকারের নির্দেশনার অংশ হিসেবে হ্যান্ডেলিং এর সরঞ্জামাদি ক্রয়ের পর নিউমুরিং কন্টেইনার টার্মিনাল সম্পূর্ণরূপে কার্যকর করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন