বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ ০৮:২২:২৪ পিএম

নাবালিকা ধর্ষণে দোষী সাব্যস্ত ধর্মগুরু আসারাম

আন্তর্জাতিক | বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮ | ০৩:২৫:৩৬ পিএম

ধর্ষণে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন স্বঘোষিত ধর্মগুরু আসারাম বাপু ও তার চার সঙ্গী। পাঁচ বছর আগে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল এই ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে। বুধবার (২৫ এপ্রিল) যোধপুরের বিশেষ আদালত দোষী সাব্যস্ত করলো পাঁচ অভিযুক্তকেই।

নাবালিকা ধর্ষণ থেকে পাচার বহু অভিযোগ ছিল এই স্বঘোষিত ধর্মগুরুর বিরুদ্ধে। পুলিশের পেশ করা অভিযোগপত্রে ধর্ষণের স্পষ্ট উল্লেখ ছিল। যদিও সাক্ষীদের হত্যা করে মামলা প্রভাবিত করার চেষ্টা হয়েছে বারবার। নয়জন সাক্ষীর ওপর বিভিন্ন সময় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এদের মধ্যে তিনজন প্রাণ হারিয়েছেন। আসারামের ব্যক্তিগত চিকিৎসক অম্রুত প্রজাপত, রাঁধুনি অখিল গুপ্তা ও অপর এক সাক্ষী ক্রিপাল সিংকে গুলি করে হত্যা করা হয়। যদিও শেষমেশ রেহাই পাননি ধর্মগুরু ও তার সঙ্গীরা।

পাঁচজনকেই দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখনও সাজা ঘোষণা হয়নি। আপাতত জেলেই থাকছেন ধর্মগুরু। তার ন্যূনতম সাজা হতে পারে ১০ বছর। সর্বোচ্চ যাবজ্জীবনের শাস্তিও পেতে পারে আসারাম।

ভারতজুড়ে প্রায় চারশ’রও বেশি আশ্রম আছে এই স্বঘোষিত ধর্মগুরুর। ভক্তসংখ্যাও অনেক। হাই প্রোফাইল এই মামলা ঘিরে তাই প্রায় দুর্গের চেহারা নিয়েছে যোধপুর। কেন্দ্রের নির্দেশে সর্বত্র নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে কিশোরীকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত আসারাম, তিনি থাকেন উত্তরপ্রদেশে। সেখানেও নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। সকাল থেকেই ভক্তদের আনাগোনা শুরু হয়েছে।

হাতের সামনেই রয়েছে গুরমিত কাণ্ডের নিদর্শনা। স্বঘোষিত সেই ধর্মগুরুকে শাস্তি দিতে গিয়ে অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছিল গোটা হরিয়ানা। তার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় তাই সবরকম নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। রাজস্থান, গুজরাট ও হরিয়ানায় মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত নিরাপত্তাকর্মী।

আদালতের রায়ের পর খুশি নির্যাতিতার বাবা বলেন, এতোদিনে আমরা সুবিচার পেলাম। এই লড়াইয়ে যারা পাশে ছিলেন তাদেরকে ধন্যবাদ। দোষীদের কঠোর শাস্তি হোক।

অন্যদিকে আসারামের মুখপাত্র নীলম দুবে বলেছেন, দেশের বিচার ব্যবস্থাকে তারা সম্মান জানান। আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করেই পরবর্তী পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন