বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৬:৩৫:৩২ পিএম

এই মাংস অন্য মাংসের সঙ্গে মিশিয়ে বিভিন্ন হোটেল ও রেস্তোরাঁয় পাচার করে দেয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী

আন্তর্জাতিক | শনিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৮ | ০৭:৪৫:১৭ পিএম

ভাগাড়ের মাংস বিভিন্ন হোটেল ও রেস্তোরাঁয় পাচারের ঘটনায় রাজ্য জুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। এরই মধ্যে ভাগাড় থেকে পচা মাংস পাচারের অভিযোগ উঠল দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, সোনারপুর থানার অন্তর্গত হরিনাভি এলাকায় পুরসভার ময়লাপোঁতা ও ভাগাড় থেকে মৃত পশুদের মাংস পাচার করা হয়। স্থানীয়দের এই অভিযোগে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। যদিও পুরসভার তরফ থেকে এই অভিযোগ খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন রাজপুর সোনারপুর পুরসভার চেয়ারম্যান ডাঃ পল্লব দাস।

পচা মাংস কীভাবে হয়ে যেত টাটকা, গন্ধহীন! সামনে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য
রাজপুর সোনারপুর পুরসভার অন্তর্গত ৩৫ টি ওয়ার্ডের সমস্ত এলাকার মৃত পশুদের দেহ পুরসভার ১৫ ও ১৮ নম্বর ওয়ার্ড জুড়ে তৈরি ময়লাপোঁতাতেই ফেলা হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, ময়লাপোঁতায় ফেলে যাওয়া মৃত পশুদের মাংস রাতের অন্ধকারে চুরি করে নিয়ে যায় একদল অসাধু ব্যবসায়ী। স্থানীয়দের আরও সন্দেহ, এই মৃত পশুদের মাংস অন্য মাংসের সঙ্গে মিশিয়ে বিভিন্ন হোটেল ও রেস্তোরাঁয় পাচার করে দেয় তারা।

জনবহুল এলাকা থেকে বেশ খানিকটা দূরে অবস্থিত এই ময়লাপোঁতা ও ভাগাড়। তাছাড়া এই এলাকায় রাতে কোনও আলোর ব্যবস্থা নেই, নেই কোনও রক্ষীও। স্থানীয়দের অভিযোগ, এই সুযোগেই এক শ্রেণির অসাধু মাংস ব্যবসায়ী এই ভাগাড় থেকে মৃত পশুদের মাংস চুরি করে পাচারের কাজ করছে।

স্থানীয়দের এই অভিযোগ খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন পুরসভার চেয়ারম্যান ডাঃ পল্লব দাস। তিনি বলেন, “ পুরসভার তরফ থেকে ওই এলাকায় নিরাপত্তা রক্ষী মোতায়েন রয়েছে। তবুও স্থানীয় মানুষজন যদি আমাদের কাছে অভিযোগ করেন তাহলে আমরা পুরসভার তরফ থেকে নিশ্চয়ই বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখবো।”

-এবেলা.ইন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন