মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮ ০৮:৩৮:৫৬ এএম

ফাইনালের আগে রিয়ালের সামনে শেষ বাধা

খেলাধুলা | মঙ্গলবার, ১ মে ২০১৮ | ১২:৪৩:৩২ পিএম

২-১ গোলে পিছিয়ে বায়ার্ন মিউনিখ। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে খেলতে হলে বায়ার্ন মিউনিখকে অসাধ্য সাধন করতে হবে। রিয়ালের মাঠে অন্তত ২-০ গোলের ব্যবধানে জিততে হবে। সুতরাং, ফাইনালে যেতে হলে বায়ার্ন মিউনিখকে লড়তে হবে বাঘের মতো। কারণ, তাদেরকে খেলতে হবে রিয়ালের মাঠে গিয়ে। শত্রুর ডেরায় কতটা ঘুরে দাঁড়িয়ে লড়াই জারি রাখতে পারবে বায়ার্ন- সেটাই এখন দেখার বিষয।

মঙ্গলবার বার্নাব্যুয়ে ২-১ এগিয়ে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের সামনে বায়ার্ন। বুধবার রোমে ৫-২ এর অ্যাডভান্টেজ নিয়ে লিভারপুল খেলবে রোমার বিরুদ্ধে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এবার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর দুর্দান্ত স্কোরিং ফর্মের উপর ভরসা রাখতে পারেন জিনেদিন জিদান।

বায়ার্নের সাবেক ফরাসি তারকা ভিসেন্তে লিজারাজু তাই বলেছেন, ‘রিয়ালকে হারিয়ে ফাইনালে যেতে বার্নাব্যুতে বায়ার্নকে বাঘের মতো খেলতে হবে।’ বাঘের মতো খেলার ক্ষেত্রে বায়ার্নের সবচেয়ে বড় বাধা দুই বড় ফুটবলারের চোট। প্রথম লেগে মিউনিখে ১০ মিনিটের মধ্যে চোট পেয়ে মাঠ থেকে বেরিয়ে যান অ্যারিয়েন রোবেন।

বিরতির পর হ্যামস্ট্রিং ধরে বেরোতে হয়েছিল জেরোম বোয়েটাংকে। রোবেন না থাকায় আক্রমণে কতটা ঝাঁঝ ইয়ুপ হেইঙ্কেসের দল বার্নাব্যুতে নিয়ে আসতে পারবে, তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। তেমনই ডিফেন্সে অভিজ্ঞতা কাটছাঁট করে নামতে হবে বোয়েটাংকে বাইরে রেখেই। আগের ম্যাচে বোয়েটাংয়ের বদলি হিসেবে যাকে নামানো হয়েছিল সেই ডিফেন্ডার নিকোলাস সুলে আত্মবিশ্বাসী।

সুলে বলেছেন, ‘আগের দিনই যথেষ্ট ভালো খেলেছিলাম। রিয়ালকে হারিয়ে দিতে পারি।’ জিদানের দল আবার যেন এই সব জাগতিক চাওয়া-পাওয়া থেকে দূরে। টানা তিনবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতার হাতছানি তার দলের সামনে। যা হলে ১৩তম ট্রফি যাবে রিয়ালের ঘরে। ক্যাপ্টেন সার্জিও রামোসও লা লিগা হাতছাড়া হওয়ার পর পাখির চোখ করেছেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগকেই।

রিয়ালের আক্রমণভাগ সাজানো নিয়ে একটা মধুর সমস্যায় রয়েছেন জিনেদিন জিদান। একদিকে ইসকো, আসেনসিও, অন্যদিকে বেনজেমা এবং গ্যারেথ বেল। কাকে রেখে কাকে খেলাবেন? আগের ম্যাচে সাইড বেঞ্চেই বসিয়ে রেখেছিলেন বেনজেমা এবং বেলকে। ইসকোর পরিবর্তে আসেনসিওকে মাঠে নামানোর পর গোলও পেয়েছিল রিয়াল। আসেনসিওর গোলেই শেষ পর্যন্ত জয় নিয়ে ঘরে ফেরে রিয়াল মাদ্রিদ।

বায়ার্নের বিরুদ্ধে নামার আগে রিয়ালের চিন্তা কার্বাজলের চোট। সঙ্গে ডিফেন্ডার নাচোও অনিশ্চিত। তাই বায়ার্নের অ্যাটাক সামলাতে রামোসকে বাড়তি দায়িত্ব নিতেই হবে। মুলার-লেভানডস্কিদের অবশ্য কম করে ২-০ জিততেই হবে এই ম্যাচ। কারণ, রিয়াল মিউনিখে গুরুত্বপূর্ণ অ্যাওয়ে গোল করে এসেছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন