বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ ০৭:২৫:০৬ এএম

নির্বাচনে আসার ব্যাপারে কাউকে চাপ দিতে পারি না : প্রধানমন্ত্রী

জাতীয় | বৃহস্পতিবার, ৩ মে ২০১৮ | ১২:৫০:০২ এএম

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নির্বাচন হচ্ছে একটি দলের গণতান্ত্রিক অধিকার। কোন পার্টি নির্বাচন করবে, কোন পার্টি নির্বাচন করবে না, এটা তাদের দলীয় সিদ্ধান্তের বিষয়। একজনের দলীয় সিদ্ধান্তের ওপরে আমি তো আর চাপিয়ে দিতে পারি না যে তোমাদেরকে নির্বাচন করতেই হবে। না করলে ধরে নিয়ে যাব জেলে- এটা বলব?

বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। সৌদি আরব, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া সফর উপলক্ষে তিনি সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন। এ সময় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিলের আগে ‘নির্বাচনকালীন সরকারের নিষ্পত্তি’চায় বিএনপি। খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচনে যাবে না বলে গণমাধ্যমেকে জানিয়ে দিয়েছেন দলটির নেতারা। আওয়ামী লীগ সভাপতি স্পষ্ট করেছেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনে খালেদা জিয়ার দলকে আনতে তিনি কোনো উদ্যোগ নেবেন না। দুই মামলায় দণ্ডিত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে বলে আবারও বলেছেন তিনি। তবে নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়ে কোনো উত্তর দেননি প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপির গত নির্বাচন বর্জন করার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তারা নির্বাচন ঠেকানোর চেষ্টা করেছিল কিন্তু পারেনি। তারা মানুষকে হত্যা করেছে। খালেদার মুক্তির বিষয়ে সরকারের কিছু করার নেই বলেও মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, তাদের নেত্রীকে রাজনৈতিকভাবে যদি জেলে পাঠাতাম তাহলে ২০১৪, ১৫, ১৬ তেই পাঠাতে পারতাম। ২০১৫ সালে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। নিজেকে নিজে অন্তরীণ করেছেন। ৪৮ জন লোক নিয়ে এক বাড়িতে থাকলেন, নির্দেশ দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করলেন। সেটা আমি রাজনৈতিকভাবে করতে চাইনি।

তিনি বলেন, কোর্ট রায় দিয়েছে। এখানে আমাদের কাছে দাবি করে তো কিছু হবে না। আইনগতভাবে মোকাবিলা করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এত উন্নয়ন করার পরও যদি জনগণ ভোট না দেয় এবং তারা যদি ক্ষমতায় না আসতে পারেন তাহলে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা নষ্ট হয়ে যাবে। ইলেকশনে জেতাটা আমি জনগণের ওপরেই ছেড়ে দিচ্ছি। জনগণ যদি মনে করে যে, তাদের উন্নয়নের ধারাটা অব্যাহত থাকুক, তারা নৌকা মার্কায় ভোট দেবে। অন্তত আমরা যেই পরিকল্পনাগুলো নিয়েছি, আজকে বাংলাদেশ যে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে, মধ্যম আয়ের দেশ তো হবেই হবে। আওয়ামী লীগই সেটা করতে পারবে, আর কেউ পারবে না।

২০১৫ সালের ২৪ জানুয়ারি আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুতে শোকগ্রস্ত মা খালেদা জিয়াকে সমবেদনা জানাতে তার বাসায় গিয়েও ফটক বন্ধ করে ঢুকতে না দেয়ার কথা আবারও বলেন শেখ হাসিনা। অন্য কেউ হলে বাইরে থেকে তালা দিয়ে রাখত, ওখান থেকে কেউ বের হতে পারত না। আমি চাইলে করতে পারতাম যে, আমিও ঢুকতে পারব না, তোমরাও বের হতে পারবে না। কিন্তু আমি রাজনৈতিকভাবে হয়রানি করিনি, গ্রেফতারও করিনি।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন