রবিবার, ২০ মে ২০১৮ ০৭:৫৮:০০ পিএম

অবশেষে ১৩তম পরীক্ষায় ধরা পড়লো আরিফ

জেলার খবর | বরগুনা | বৃহস্পতিবার, ৩ মে ২০১৮ | ১১:৪১:০৯ পিএম

২৫ হাজার টাকার চুক্তিতে বরগুনার আমতলীতে চলমান এইচএসসি পরীক্ষায় অন্যের হয়ে ১৩তম পরীক্ষা দিতে এসে আটক হয়েছেন আরিফ হোসেন (১৯) নামের এক কলেজছাত্র।

বৃহস্পতিবার সকালে আমতলীর বকুলনেছা মহিলা কলেজ কেন্দ্র থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। আরিফ পটুয়াখালী সরকারি কলেজের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্র ও বরগুনা সদর উপজেলার বুরিরচর গ্রামের বাবুল শরীফের ছেলে।

আমতলী থানা ও পরীক্ষা কেন্দ্র সূত্রে জানা গেছে, আমতলী সরকারি কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র মেহেদি হাসানের (রোল ২২৩২১৮, রেজিস্ট্রেশন নম্বর-১১৫২৬২৭৭৪) পরিবর্তে ২৫ হাজার টাকা চুক্তিতে তার বন্ধু আরিফ বকুলনেছা মহিলা কলেজ কেন্দ্রে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়ে আসছে। ১২টি বিষয়ের পরীক্ষা দেয়ার পর বৃহস্পতিবার সকালে উচ্চতর গণিত বিষয়ের পরীক্ষা দিতে বকুলনেছা মহিলা কলেজ কেন্দ্রে আসে আরিফ।

এসময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কেন্দ্রের গেট থেকে সকাল সাড়ে ৯টায় তাকে আটক করে। পরে জিজ্ঞাসাবাদে আরিফ তার বন্ধু হাসানের হয়ে ভুয়া পরীক্ষার্থী সেজে ২৫ হাজার টাকা চুক্তিতে পরীক্ষা দিতে আসার কথা স্বীকার করে।

এসময় আরিফ পুলিশকে জানায়, আমতলীর চাওড়া চালিতাবুনিয়া গ্রামের আনিছুর রহমানের ছেলে আমতলী সরকারি কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মেহেদি হাসান আমার বন্ধু। তার অনুরোধে এবং ২৫ হাজার টাকা চুক্তিতে ভুয়া পরীক্ষার্থী সেজে পরীক্ষা দিতে আসি।

এ বিষয়ে বকুলনেছা মহিলা কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব মো. মজিবুর রহমান বলেন, ভুয়া পরীক্ষার্থী সেজে পরীক্ষা দেয়ার অপরাধে আরিফের বিরুদ্ধে আমতলী থানায় মামলা করা হয়েছে। আর প্রকৃত পরীক্ষার্থী মেহেদী হাসানকে পরীক্ষা থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ বিষয়ে আমতলী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সহিদ উল্যাহ বলেন, বৃহস্পতিবারই আরিফকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন