বুধবার, ২৩ মে ২০১৮ ০৯:১১:৫৩ পিএম

ধানখেতের আইলে নবজাতক, দায়িত্ব নিলেন ইউএনও

জেলার খবর | কুড়িগ্রাম | মঙ্গলবার, ৮ মে ২০১৮ | ১০:১২:১১ পিএম

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ধানখেতের আইল থেকে উদ্ধার হওয়া শিশুটির ভরণপোষণ ও পড়ালেখার দায়িত্ব নিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শঙ্কর কুমার বিশ্বাস।

শিশুটির নাম দিয়েছেন সুমাইয়া আক্তার অজান্তা। সে বড় হবে সফিকুল ইসলাম ও আঞ্জুয়ারার সন্তান পরিচয়ে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শঙ্কর কুমার বিশ্বাস কালীগঞ্জ ইউনিয়নের কুটি মন্নেয়ারপাড় গ্রামে ওই শিশুটিকে দেখতে যান।

এ সময় সফিকুল ইসলাম ও তার স্ত্রী আঞ্জুয়ারার সঙ্গে কথা বলে তিনি শিশুটির ভরণপোষণ ও পড়ালেখার দায়িত্ব নেন। নাম রাখেন সুমাইয়া আক্তার অজান্তা।

ওই দম্পতিকে বাবা-মা উল্লেখ করে শিশুটির জন্মনিবন্ধন সনদ তৈরি করতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান ব্যাপারীকে নির্দেশ দেন ইউএনও।

এখন থেকে শিশুটি ওই দম্পতির সন্তান পরিচয়ে সামাজিকভাবে বড় হবে। তিনি আশা করেন শিশুটি একদিন বড় হয়ে পড়ালেখা শিখে মানবসেবায় ব্রতী হবে। পরে শিশুটির জন্য তার নতুন বাবা ও মায়ের হাতে নগদ অর্থ, পোশাক তুলে দেন।

উল্লেখ্য, সফিকুল ইসলাম শনিবার সকাল ৭টায় তার বাড়ির পাশের ধানখেত দেখতে গিয়ে জমির আইলে এক নবজাতক কন্যাশিশুকে কাপড় দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে তিনি উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে যান।

বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে চিকিৎসার জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

চিকিৎসা শেষে রোববার বিকেলে আশঙ্কামুক্ত অবস্থায় শিশুটিকে হাসপাতাল থেকে বাড়ি নিয়ে আসেন সফিকুল ইসলাম ও তার স্ত্রী আঞ্জুয়ারা। তারা নিঃসন্তান হওয়ায় শিশুটিকে সন্তান হিসেবে নিতে চান।

এদিকে চার দিনেও শিশুটির প্রকৃত বাবা-মায়ের খোঁজ না পাওয়ায় মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শঙ্কর কুমার বিশ্বাস ইউপি চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে তার ভরণপোষণ ও পড়ালেখার দায়িত্ব নিয়ে বাবা-মায়ের পরিচয়ে বাঁচার জন্য শিশুটিকে ওই দম্পতির হাতে তুলে দেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন