রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ০৫:০৭:২৬ এএম

‘ভারত নয়, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের কারণেই শাকিব খান হয়েছ’

বিনোদন | বৃহস্পতিবার, ১০ মে ২০১৮ | ১১:০৬:৩৭ পিএম

বর্তমানে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ও শাকিব খান দুটি দুই মেরুতে অবস্থান করছে। বাংলাদেশে শাকিবের ছবি মুক্তি নিয়ে নানান ঝামেলার কথা শোনা যাচ্ছে। কয়েকদিন আগে এই তারকার চালবাজের মুক্তি ঠেকাতেও তৎপরতা দেখা গেছে। এবার সেই তালিকায় যোগ হচ্ছে ভাইজান এলো রেও। নিজের ছবির মুক্তি ঠেকাতে যারা উঠে পড়ে লেগেছেন তাদের উদ্দেশ্য করে শাকিব বলেছিলেন, তারা পারতেছে না আমাকে মেরে ফেলতে। মনে হয় আমাকে এ দেশে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। না হলে আমার ছবি মুক্তিতে তাদের এত অ্যালার্জি কেন।

এদিকে শাকিবের ভাইজান এলো রে নিয়ে পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন বলেন, একটি ছবির কমপ্লিট শুটিং হওয়ার পরও পুনরায় কীভাবে সেই ছবি নির্মাণের আবেদন করা যেতে পারে এটা আমার বোধগম্য হচ্ছে না। শাকিব নিজেই লন্ডনে শুটিং শেষ হওয়ার কথা বলেছিলেন। কিন্তু সেই ছবি আবারো নতুন করে নির্মাণের আবেদন করেছেন কলকাতার একজন পরিচালক। এটি প্রতারণা ছাড়া আর কী? তাই তথ্যের গড়মিল পাওয়ায় জয়দীপ মুখার্জীকে পরিচালক সমিতির সদস্য পদ দিচ্ছি না।

তিনি আরো বলেন, ভাইজান এলো’রে পুরোটাই কলকাতার ছবি। সেখানকার ছবি বাংলাদেশে মুক্তি দেওয়ার জন্য এত মরিয়া ভাব কেন? এ সিনেমায় ভারতের সব টেকনিশিয়ানরা কাজ করেছেন। আমাকে দেখতে হবে আমার দেশের স্বার্থ। শাকিবেরও সেটাই দেখা উচিৎ।

এসময় শাকিবকে উদ্দেশ্য করে বদিউল আলম আরো বলেন, ভারত নয়, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের কারণেই শাকিব খান হয়েছ। তাই তোমার উচিৎ বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের স্বার্থটাই আগে দেখা। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র যাতে ধ্বংস না হয়ে যায় সেই দিকেই নজর রাখা উচিৎ তার। আমার মতে, এইসব ঝামেলা শাকিব নিজেই মেটাতে পারে।

ছবি মুক্তির বিষয়ে পরিচালক সমিতির এই মহাসচিব বলেন, আমি এদেশে ছবি নির্মাণ করে কলকাতার ছবি হিসেবে সেটিকে মুক্তি দেওয়ার জন্য যদি সেখানকার পরিচালক সমিতির সদস্য হতে যাই, তারা কি আমাকে সদস্য করবেন? একটি ছবি নির্মাণের আগে সেই ছবির নাম এন্ট্রি করতে হয়। বাংলাদেশের ছবির কোনো চিহ্নই নেই অথচ বাংলাদেশে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এটা সম্ভব না। আমার মতে, বাংলাদেশে ভাইজান এলো রে মুক্তি দেওয়ার কোনো অপশন নেই।
বাকিটা মন্ত্রণালয়ের হাতে।।

উল্লেখ্য, ‘ভাইজান এলো রে’ ছবিটি নির্মাণের পর পরিচালক সমিতির অতিথি সদস্য হতে চেয়ে আবেদন করেছিলেন কলকাতার নির্মাতা জয়দীপ মুখার্জি।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন