শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ ০৮:৫২:৫৮ এএম

কুড়িলে কলেজছাত্র হত্যার রহস্য উন্মোচন

আইন আদালত | রবিবার, ১৩ মে ২০১৮ | ০৮:৩৫:০০ পিএম

কুড়িল চৌরাস্তা এলাকায় ছুরিকাঘাতে কলেজ ছাত্র আশরাফুল আলম জাহিদ হত্যার রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় প্রধান আসামি মোহাম্মদ উল্লাহ রাসেল ওরফে হৃদয় ওরফে নির্মলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, ব্লুটুথ স্পিকার নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরেই মূলত এ হত্যাকা- ঘটেছে।

রোববার বিকেলে ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার প্রধান মাসুদুর রহমান রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘হত্যাকা-ের পরই রাসেল আত্মগোপনে চলে যায় এবং নিজের নাম পরিবর্তন করে ছদ্মনামে তাবলিগ জামায়াতে অংশ নেয়।

১২ মে রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাগেরহাট জেলার মংলা থানা এলাকা থেকে রাসেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার দেখানো মতে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত ছুরি কাফরুল থানার পুলপাড় এলাকার ব্রিজের নিচে নর্দমা থেকে উদ্ধার করা হয়।’

তিনি জানান, জিজ্ঞাসাবাদে রাসেল বলেছে, মূলত তারা দুজন বন্ধু। একটি ব্লুটুথ স্পিকার নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এর জের ধরেই সে এই হত্যাকা- ঘটিয়েছে।’

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, ২ মে সন্ধ্যায় ভাটারা থানার প্রগতি সরণির কুড়িল চৌরাস্তা এলাকায় সমবয়সী কয়েকজন বন্ধু এবং একই সঙ্গে চলাফেরা করে এমন কয়েকজন সিনিয়র সঙ্গীদের মধ্যে বাদানুবাদ হয়। একপর্যায়ে রাসেল আশরাফুলকে ছুরিকাঘাত করে। এতে তার মৃত্যু হয়। আশরাফুলকে বাচাঁতে এগিয়ে আসা হাসান, রিয়াজ ও বিপ্লবকেও সে ছুরি দিয়ে আঘাত করে গুরুতর জখম করে। হত্যাকা-ের পর সে আত্মগোপনে গিয়ে ছদ্মনামে তাবলিগ জামায়াতে অংশ নেয়। ৪০ দিনের চিল্লায় বাগেরহাট জেলার মংলা থানা এলাকায় অবস্থান করে।

উল্লেখ্য, ঘটনার সময় ছুরিকাহত তিন জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন