শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮ ০৯:৩০:৩০ এএম

বার্সার অপরাজেয়র স্বপ্ন ভাঙল লেভান্তে

খেলাধুলা | সোমবার, ১৪ মে ২০১৮ | ১০:১৪:১৪ এএম

অপরাজিত থেকে পুরো লা লিগা শেষ করার খুব কাছেই চলে গিয়েছিল বার্সেলোনা। শেষ দুই ম্যাচে হার এড়াতে পারলেই প্রথম দল হিসেবে ৩৮ ম্যাচের লা লিগায় অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব দেখাতো। কিন্তু কাল লেভান্তের মাঠে হেরে এক ম্যাচ বাকি থাকতে ভেঙে গেল কাতালানদের অপরাজেয়র স্বপ্ন।

লা লিগায় বার্সেলোনা মাত্র একবারই হেরেছিল লেভান্তের কাছে। ১৯৬৪ সালে ৫-১ গোলে হারতে হয়েছিল তাদের। কালও একটা সময় বার্সা পিছিয়ে ছিল ৫-১ গোলে। সেখান থেকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত লেভান্তের কাছে দ্বিতীয় হার এড়াতে পারেনি। লিওনেল মেসিকে ছাড়া খেলতে নামা ম্যাচে চ্যাম্পিয়নরা হেরেছে ৫-৪ গোলে।

লেভান্তের পক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন এমানুয়েল বোয়েটাং। এনিস বার্ধি করেছেন জোড়া গোল। বার্সেলোনার হয়ে হ্যাটট্রিক করেছেন ফিলিপে কুতিনহো। কিন্তু কাতালান ক্লাবটির হয়ে ব্রাজিলিয়ান তারকার প্রথম হ্যাটট্রিকের উপলক্ষটা জয়ে রাঙিয়ে রাখা হলো না। দলের অন্য গোলটি করেছেন লুইস সুয়ারেজ।

গত মৌসুমে সাত আর এবারের লা লিগায় ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর হারল বার্সা। আর্নেস্তো ভালভার্দের অধীনে লিগে এটিই বার্সার প্রথম হার। তাদের সবশেষ হার ছিল লুইস এনরিকের অধীনে, ২০১৭ সালের এপ্রিলে মালাগার মাঠে।

প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচের নবম মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে বার্সা। গোল করে লেভান্তেকে এগিয়ে দেন বোয়েটাং। বাঁ দিক থেকে লুইস মোরালেসের নিচু ক্রসে বোয়েটাংয়ের ভলি ক্রসবারে লেগে জালে জড়ায় (১-০)।

১৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ হতে পারত লেভান্তের। কিন্তু খুব কাছ থেকে বার্ধির নেওয়া শট ক্রসবারে লেগে ফিরলে হতাশ হতে হয় স্বাগতিক দর্শকদের। তবে ৩১ মিনিটেই দলকে ২-০ গোলে এগিয়ে দেন বোয়েটাং।

৩৮ মিনিটে বার্সার হয়ে ব্যবধান কমান কুতিনহো। বক্সের সামনে জেরার্ড পিকে বল দিয়েছিলেন সুয়ারেজকে। তিনি আবার বল বাড়ান কুতিনহোকে। ২০ গজ দূর থেকে জোরালো শটে লক্ষ্যভেদ করেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার (২-১)।

দ্বিতীয়ার্ধে এক মিনিট না-যেতেই গোল হজম করে বসে বার্সা। বক্সের সামনে থেকে জোরালো শটে গোলটি করেন বার্ধি (৩-১)। তিন মিনিট পরই ক্যারিয়ারের প্রথম হ্যাটট্রিক করেন বোয়েটাং (৪-১)।

৫৬ মিনিটে নিজের জোড়া গোলে বার্সাকে স্তব্ধ করেন দেন বার্ধি। বার্সা যে তখন পিছিয়ে ৫-১ গোলে! মেসির অভাবটা টের পাচ্ছিল ভালোভাবেই।

৫৯ মিনিটে বার্সার হয়ে ব্যবধান কমান কুতিনহো। খুব কাছ থেকে জোরালো শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন তিনি (৫-২)। ৬৪ মিনিটে বক্সের সামনে থেকে আরেকটি দারুণ শটে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন ব্রাজিলিয়ান এই প্লে-মেকার (৫-৩)।

৭১ মিনিটে বক্সের ভেতর সার্জিও বুসকেটসকে ফাউল করায় পেনাল্টি পেয়ে যায় বার্সা। পেনাল্টি থেকে গোল করে ম্যাচ দারুণ জমিয়ে তোলেন সুয়ারেজ (৫-৪)।

কিন্তু বাকি সময়ে আর কোনো গোল না পাওয়ায় পরাজয় এড়াতে পারেনি বার্সা। উল্টো ৯০ মিনিটে আরেকটি গোল খেতে বসেছিল তারা। বুসকেটসের ব্যাকপাস গোলরক্ষকের নাগাল পায়নি, খুব কাছ থেকে বল বাইরে দিয়ে মারেন লেভান্তের রুবেন রচিনা।

আগেই শিরোপা জেতা বার্সা ৩৭ ম্যাচে ৯০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে। আগামী শনিবার রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে কাতালানরা খেলবে তাদের শেষ ম্যাচ। যেটি হবে বার্সার জার্সিতে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তারও শেষ ম্যাচ।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন