মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮ ০৮:৩৪:০৪ এএম

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন: এসে দেখি সিল মারা হয়ে গেছে

রাজনীতি | খুলনা | মঙ্গলবার, ১৫ মে ২০১৮ | ০১:৪০:৫১ পিএম

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু অভিযোগ করে বলেছেন, খবর শুনে রূপসা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসে দেখি পর পর পাঁচটি বুথে ব্যালট পেপারে সিল মারা হয়ে গেছে।

পরে তিনি পাঁচটি বুথেই ঘুরে ঘুরে ব্যালট পেপার দেখান। এসময় তিনি বলেন, ব্যালট ব্যাপারে কোনো ভোটার টিপসই নেই, সিল নেই, সব সিল মারা হয়ে গেছে। আমি যে সব অভিযোগ করেছিলাম তা সত্য হয়েছে।

রূপসা ভোট কেন্দ্রে মেয়রের বই কেটে সিল মারা হয়েছে। আমি নির্বাচন অফিসারকে বলেছি এখানে এসে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য। এভাবে চললে কোথাও অবাধ, সুষ্ঠু ভোট হওয়ার সুযোগ নেই। আমি নিজে দেখেছি বই কেটে ব্যালট বাক্স ভরা হয়েছি।

তিনি বলেন, আমি রিটার্নিং অফিসারকে বলব সেসব কেন্দ্রে ভোটি ডাকাটি হয়েছে সেখানে ফের ভোট নিতে। ভোট হোক শেষ পর্যন্ত আমি চাই।

তবে এই বিষয়ে কথা বলতে রূপসা ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসারকে পাওয়া যায়নি।

খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সকালে থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। বেলা যত বাড়ছে ভোটারদের উপস্থিতিও তত বাড়ছে। তবে নারী ভোটারের সংখ্যা বেশি চোখে পড়েছে। মঙ্গলবার সকাল আটটায় একযোগে এ সিটির ২৯৮টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

সকাল থেকেই ভোটারদের লাইনে দাঁড়িয়ে ভোটের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

খুলনা সিটি করপোরেশনে প্রথমবারের মতো মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

মেয়র পদে যে পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তারা হলেন, আওয়ামী লীগের তালুকদার আবদুল খালেক (নৌকা), বিএনপির নজরুল ইসলাম মঞ্জু (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির এস এম শফিকুর রহমান (লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের অধ্যক্ষ মাওলানা মুজ্জাম্মিল হক (হাতপাখা) এবং বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির(সিপিবি) মিজানুর রহমান বাবু (কাস্তে)।

৪৬ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এ নগরীতে মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ২৮৯টি ও ভোটকক্ষ ১ হাজার ৫৬১ জন। নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন, যার মধ্যে পুরুষ ২ লাখ ৪৮ হাজার ৯৮৬ জন ও নারী ভোটার ২ লাখ ৪৪ হাজার ১০৭ জন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন