মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০১:১৮:৫০ এএম

কমে এসেছে রোহিঙ্গাদের জন্য আন্তর্জাতিক সহায়তা

জাতীয় | বুধবার, ১৬ মে ২০১৮ | ০৩:৩৩:৩৮ পিএম

কমে এসেছে রোহিঙ্গাদের জন্য আন্তর্জাতিক সহয়তা। ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম ডব্লিউএফপি বলছে, আগামী ১০ মাসে রোহিঙ্গাদের খাবারের জন্য লাগবে ২৪৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা। আর ভরপোষণে প্রয়োজন ৯৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা সাড়ে ৭ হাজার কোটি টাকা। এ তহবিল সংগ্রহে ব্যর্থ হলে রোহিঙ্গাদের বাঁচিয়ে রাখাই কঠিন হবে বলে আশঙ্কা ডব্লিউএফপির।

রাখাইনে নির্যাতনের মুখে আগস্ট থেকে বাংলাদেশে ঢুকতে থাকে রোহিঙ্গারা। তখন জাতিসংঘ হিসাব দেয়, ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৬ মাসে প্রয়োজন ৪৩৪ মিলিয়ন ডলার। দাতাদের কাছ থেকে ৪০০ মিলিয়ন ডলার পাওয়াও যায়।

কিন্তু এখন তহবিল নিয়ে অনিশ্চয়তায় পড়েছে ডব্লিউএফপি। কারণ রোহিঙ্গাদের খাবারের জন্য দরকার ২৪৩ মিলিয়ন ডলার, আছে মাত্র ৪৫ মিলিয়ন।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচীর (ডব্লিউএফপি) আবাসিক প্রতিনিধি ক্রিস্টা রাড বলেন, এখনো তহবিলে ২০০ মিলিয়ন ডলারের ঘাটতি রয়েছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে দীর্ঘমেয়াদে রোহিঙ্গাদের প্রয়োজনীয় দৈন্দিন খাদ্য সরবরাহ করাটা সংকটের মধ্যে পড়বে। তহবিলের জন্য এরই মধ্যে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার কাছে অনুরোধ জানানো হয়েছে। কিন্তু আশানুরূপ সাড়া মিলছে না। এ পরিস্থিতিতে আমরা উদ্বিগ্ন।

সংস্থাটির দাবি প্রথম দিকে ২০টি দেশ রোহিঙ্গাদের সহায়তায় আন্তরিক থাকলেও এখন আগ্রহ অনেক কম। এ অবস্থায় রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ সরবরাহ ঝুঁকির মুখে পড়তে যাচ্ছে। তবে তহবিল সংগ্রহের বিষয়ে এখনো আশাবাদী সরকার। পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক জানিয়েছেন এরই মধ্যে তহবিল বাড়ানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে।

পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক জানান, ডব্লিউএফপি বলছে, রোহিঙ্গাদের খাদ্য সরবরাহে ইলেকট্রনিক শপিং সিস্টেম চালু করা হয়েছে। ১০ মাসের মধ্যে সব রোহিঙ্গা আওতার মধ্যে আসবে। সংস্থাটির তাগিদ এমন প্রকল্প হাতে নেয়া উচিত যেন রোহিঙ্গারা আত্মনির্ভরশীল হয়ে উঠতে পারে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন