শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ ০২:১০:১৬ পিএম

ঢাকা-মাওয়া চার লেন, ভুল পরিকল্পনায় ব্যয় বাড়ছে ৫৪ শতাংশ

জাতীয় | শনিবার, ১৯ মে ২০১৮ | ০৪:৫৫:২২ পিএম

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল মহাসড়ক হচ্ছে ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা চার লেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত এ প্রকল্পের পরিবেশগত প্রভাব সমীক্ষা (ইআইএ) করা হয়নি। প্রকল্পটির কোনো পরিবেশগত পর্যবেক্ষণ পরিকল্পনা (ইএমপি) ও ভূগর্ভস্থ পরিষেবা সংযোগ লাইন স্থানান্তরের কোনো মাস্টারপ্ল্যান নেই। এ ছাড়া প্রকল্পটির প্রাথমিক পরিকল্পনায়ও ছিল ভুল। এসব কারণে ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা চার লেন নির্মাণে কাজ শুরুর দুই বছরের মাথায় দ্বিতীয় দফায় প্রায় ৫৪ শতাংশ ব্যয় বাড়ছে।

সাম্প্রতি পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীন বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) প্রতিবেদেন এ তথ্য উঠে এসেছে।

এর আগে প্রথম দফায় প্রকল্পটির ভূমি অধিগ্রহণ ব্যয় কম ধরার যুক্তিতে প্রায় ১০ শতাংশ ব্যয় বাড়ানো হয়েছিল।

প্রতিবেদনের তথ্যমতে, ২০১৬ সালের মে মাসে ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা চার লেন উন্নীতকরণ প্রকল্পটি অনুমোদন করা হয়। সে সময় এর ব্যয় ছিল ছয় হাজার ২৫২ কোটি ২৮ লাখ টাকা। যদিও অনুমোদনের ছয় মাসের মধ্যেই এ ব্যয় বাড়ানো হয় আরও ৬০০ কোটি টাকা।

এরপর দুই বছর না যেতেই প্রকল্পটির পরিকল্পনায় ভুল ধরা পড়ে। এতে এ প্রকল্পের ব্যয় বেড়ে হচ্ছে ১০ হাজার ৫৪২ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। অর্থাৎ তিন হাজার ৬৯০ কোটি ৬৮ লাখ টাকা বা ৫৩ দশমিক ৮৬ শতাংশ ব্যয় বাড়ছে।

সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের (সওজ) প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান জানান, নির্মাণ শুরুর সময় কিছু বিষয় ছিল না, যা পরে যুক্ত হয়েছে। এতে প্রকল্পটির কাজের পরিধি বেড়ে গেছে। এ ছাড়া জমি অধিগ্রহণের পরিমাণ বাড়াতে হয়েছে।

এজন্য খাতটির ব্যয় বাড়াতে হচ্ছে। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনে ব্যয়ও বাড়ছে। আর আয়কর, ভ্যাটসহ নতুন কিছু বিষয় যুক্ত হয়েছে। মাটির সক্ষমতা বাড়াতে হয়েছে। পাশাপাশি নির্মাণ সামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ায় তার ব্যয় নতুন করে প্রকল্পটিতে যুক্ত হয়েছে বলে জানান প্রধান প্রকৌশলী।

প্রসঙ্গত, ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা ৫৫ কিলোমিটার চার লেন নির্মাণ প্রস্তাবটি সংশোধন করা হয় ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে। এতে প্রকল্পটির ব্যয় দাঁড়ায় ছয় হাজার ৮৫২ কোটি ২৮ লাখ টাকা। এতে কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় ছিল ১২৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। প্রতি কিলোমিটারের ব্যয় হিসেবে বিশ্বে সবচেয়ে ব্যয়বহুল এই মহাসড়ক।

তবে এবার প্রকল্পটির ব্যয় প্রস্তাব করা হয়েছে ১০ হাজার ৮৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা। অর্থাৎ ব্যয় বাড়ছে তিন হাজার ২৩২ কোটি ৩২ লাখ টাকা বা ৪৭ দশমিক ১৭ শতাংশ। আর কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় বেড়ে দাঁড়াবে ১৮৩ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। অর্থাৎ ব্যয়বহুল মহাসড়কটি আরও ব্যয়বহুল হয়ে পড়বে।

সূত্র: শেয়ার বিজ

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন