রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ ০৮:১২:০৪ এএম

‘এবারের বিশ্বকাপটা আমারই’

খেলাধুলা | রবিবার, ২০ মে ২০১৮ | ১২:৫৯:৩৬ এএম

নেইমার দা সিল্ভা স্যান্তোস জুনিয়র, নেইমার নামেই অধিক পরিচিত, একজন ব্রাজিলীয় পেশাদার ফুটবলার, যিনি ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে একজন ফরোয়ার্ড বা উইঙ্গার হিসেবে খেলেন। তাকে আধুনিক বিশ্বের উদীয়মান ফুটবলারদের মধ্যে অন্যতম মনে করা হয়। নেইমার ১৯ বছর বয়সে ২০১১ এবং ২০১২ সালে দক্ষিণ আমেরিকার বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হন।

২০১১ সালে নেইমার ফিফা ব্যালন ডি'অরের জন্য মনোনয়ন পান, তবে ১০ম স্থানে আসেন। তিনি ফিফা পুরষ্কারও অর্জন করেন।

নেইমার সর্বাধিক পরিচিত তার ত্বরণ, গতি, বল কাটানো, সম্পূর্ণতা এবং উভয় পায়ের ক্ষমতার জন্য। তার খেলার ধরন তাকে এনে দিয়েছে সমালোচকদের প্রশংসা, সাথে প্রচুর ভক্ত, মিডিয়া এবং সাবেক ব্রাজিলীয় ফুটবলার পেলের সঙ্গে তুলনা।

পেলে নেইমার সম্পর্কে বলেন, "একজন অসাধারণ খেলোয়াড়।" অন্যদিকে রোনালদিনহো বলেন, "নেইমার হবে বিশ্বসেরা।"

২০১৫ সালের ফিফা ব্যালন ডি অরের জন্য তিনজনের সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পান নেইমার, যেখানে তিনি মেসি ও রোনালদোর পরে তৃতীয় হন।

নেইমার সান্তসে (ব্রাজিলীয় ক্লাব) যোগ দেন ২০০৩-এ। বিভিন্ন মর্যাদাক্রম অতিক্রম করে তিনি মূলদলে নিজের যায়গা করে নেন। তিনি সান্তসের হয়ে প্রথম আবির্ভাব করেন ২০০৯ সালে। ২০০৯ সালে তিনি কম্পেনাতো পুলিস্তার শ্রেষ্ঠ যুবা খেলোয়ার নির্বাচিত হন।

কিছুদিন আগের অস্ত্রোপচারের পর ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন নেইমার।

চলতি বছরের ১৭ জুন ব্রাজিলের বিশ্বকাপ অভিযান শুরু। গ্রপ ‘‌ই’‌-তে ব্রাজিলের সঙ্গে রয়েছে সুইৎজারল্যান্ড, কোস্টা রিকা এবং সার্বিয়া। এখন প্রশ্ন কেমন চলছে নেইমারের প্রস্তুতি?

নেইমারের জবাব, ‘‌ইতিমধ্যেই বল নিয়ে প্র‌্যাকটিস শুরু করে দিয়েছি। ভালই লাগছে। স্বস্তি অনুভব করছি। হ্যাঁ, একটা ভয় আছে ঠিকই, কিন্তু ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছি।’‌

বিশ্বকাপের আগে যতটা প্রস্তুতি নেওয়ার কথা, ততটা নিতে পারছেন না। কিন্তু বিশ্বকাপে খেলবেন, এই ব্যাপারটাই উৎসাহ যোগাচ্ছে নেইমারকে। তিনি বলেন, ‘‌আমি খেলব, এটাই প্রেরণা। মাঠে নামাটাই আমার কাছে অত্যন্ত আনন্দের। বিশ্বের সবথেকে বড় প্রতিযোগিতা হল বিশ্বকাপ। আমি চাই চ্যাম্পিয়ন হতে। এবারের বিশ্বকাপটা আমারই।’

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন