রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ ০২:২৮:৩০ পিএম

শেরপুরে হুইপ আতিকের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন, কুশ পুত্তলিকা দাহ ও ঝাড়ু মিছিল

জাহিদুল খান সৌরভ | জেলার খবর | শেরপুর | সোমবার, ২১ মে ২০১৮ | ১২:৪৩:১১ এএম

শেরপুরে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী ও সাংসদ চাঁনসহ ৬ নেতার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের একটি বৃহৎ অংশ। এরই প্রতিবাদে ২০ মে রবিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনসহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হুইপ আতিউর রহমান আতিকের অপসারণের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও তার কুশ পুত্তলিকা দাহ করেছে বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা। 
শহরের খরমপুরস্থ দলীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের ওই সিদ্ধান্তকে তথাকথিত, অগণতান্ত্রিক ও অবৈধ বলে উল্লেখ করে বলা হয়, কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরীকে শেরপুর থেকে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত জেলা আওয়ামী লীগের এখতিয়ার বহির্ভূত।

এছাড়া সম্প্রতি দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক, সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি সাক্ষরিত এক পত্রের নিদের্শনা অনুযায়ী, কোন কমিটি বা কোন নেতার বিরুদ্ধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ উঠলেও সেই কমিটি বাতিল বা সেই নেতাকে কোনক্রমেই বহিস্কারের সুযোগ নেই কেন্দ্রীয় কমিটির অনুমোদন ব্যতীত। অর্থাৎ ওই নির্দেশনা অনুযায়ী দলের কাউকে বহিস্কার করার এখতিয়ার একমাত্র কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদেরই রয়েছে। কাজেই জেলা আওয়ামী লীগের ওই সিদ্ধান্তই কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সিদ্ধান্তের পরিপন্থী।

বিষয়টি চলমান রাজনৈতিক অবস্থায় শৃঙ্খলাপরিপন্থী ও বিভ্রান্তিকরও। সেইসাথে সংবাদ সম্মেলনে অবিলম্বে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিউর রহমান আতিককে ‘দুর্নীতিবাজ, অযোগ্য ও রাজাকারের সন্তানদের আশ্রয়-প্রশ্রয়দাতা’ হিসেবে উল্লেখ করে তাকে দলীয় দায়িত্বসহ জাতীয় সংসদের হুইপ পদ থেকে অপসারণ, জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি বাতিল, মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পরও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত না হওয়ায় শেরপুর সদর, শহর, ঝিনাইগাতী ও শ্রীবরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি বাতিল এবং জেলার দলীয় প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতাদের দিয়ে হুইপ আতিকের দুর্নীতি-অপকর্মের তদন্তের জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠনসহ জেলা আওয়ামী লীগের তথাকথিত সভার সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি করা হয়। অন্যথায় সর্বস্তরের দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে ‘দুর্নীতিবাজ’ হুইপ আতিককে অবাঞ্চিত ঘোষণাসহ বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবীর রুমান। ওইসময় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ছানুয়ার হোসেন ছানু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট মুহাম্মদ আখতারুজ্জামান, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি, জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এডভোকেট রফিকুল ইসলাম আধার, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সমাজকল্যাণ সম্পাদক তাপস সাহা, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামছুন্নাহার কামাল, জেলা যুবলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইফতেখার হোসেন কাফি জুবেরী, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি আব্দুল কাদির, সদর উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান বায়েযীদ হাছান, জেলা যুব মহিলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক এডভোকেট ফারহানা পারভীন মুন্নী, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সাব্বির আহমেদ খোকন, সদস্য আব্দুল হান্নান ও আয়েশা সিদ্দিকা রূপালী, পৌর প্যানেল মেয়র তৌহিদুর রহমান বিদ্যুৎ, নেপোলীস্থ আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জয়নাল আবেদীন হাজারী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম সম্রাটসহ বিপুল সংখ্যক দলীয় নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনের পর বিক্ষুব্ধ দলীয় নেতা-কমীরা রাস্তায় হুইপ আতিকের কুশ পুত্তলিকা দাহ করে। পরে ঝাড়–সহ এক বিক্ষোভ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। ওইসময় নেতা-কর্মীরা ‘দুর্নীতিবাজ আতিকের বিচার চাই, করতে হবে, অবৈধ সিদ্ধান্ত মানি না মানব না’ বলে শ্লোগান দেয়। উল্লেখ্য, ১৯ মে শনিবার শহরের চকবাজারস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী পরিষদের এক সভায় শেরপুর-২ (নালিতাবাড়ী-নকলা) আসনের সাংসদ ও দলের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরীকে শেরপুর থেকে প্রত্যাহার এবং শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) আসনের দলীয় সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক চাঁন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শামছুন্নাহার কামাল, নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিয়াউল হক মাস্টার, সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক ও নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জিন্নাহকে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়া নালিতাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যক্রম বাতিল এবং নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ মোঃ বোরহান উদ্দিনকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব অর্পণ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন