মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ ০৬:০০:৩৫ এএম

কুসংস্কারের বলি ফরহাদ

জেলার খবর | ফরিদপুর | মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮ | ০৯:২০:১১ পিএম

ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে সাপের কামড়ে ফরহাদ মোল্লা (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার ভোররাতে তার মৃত্যু হয়।

ফরহাদ মোল্লা ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলার সদর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের বাসিন্দা লালু মোল্লার ছোট ছেলে। সোমবার দুপুর ২টার দিকে বাড়ির পার্শ্ববর্তী চর এলাকা থেকে তাকে সাপে কামড়ায়।

স্থানীয়রা জানান, ফরহাদ মোল্লা বাড়ির পার্শ্ববর্তী মাঠে গরুকে ঘাস খাওয়াতে নিয়ে গেলে সোমবার দুপুর ২টার দিকে তাকে সাপে কামড়ায়। সাপে কামড়ানোর পরপরই উপজেলা চেয়ারম্যান এজিএম বাদল আমিন ও উপস্থিত সাংবাদিকরা ফরহাদের বাড়িতে গিয়ে তাকে হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দিলে রোগীর স্বজনরা প্রতিবাদ করেন।

ফরহাদের বাবা লালু মোল্লা বলেন, আমরা লোক মুখে শুনেছি এর আগে যে সব সাপে কাটা রোগীকে হাসপাতালে ইনজেকশন দেয়া হয়েছে তারা মারা গেছে। আমার ছেলেকে আমরা ইনজেকশন দিতে দেব না। আমরা ওঝা দিয়ে ঝাড়ফুঁক করে ছেলেকে সুস্থ করে তুলব।

ফলে স্বজনরা ওই ফরহাদকে হাসপাতালে না নিয়ে প্রথমে আমীরের ব্রিজ নামক এলাকায় ফজল মিস্ত্রি ওঝার বাড়িতে নিয়ে ঝাড়ফুঁক দেয়া হয়। পরে সেখানে আরেক ওঝা স্বর্পরাজ রাজা মিয়াকে আনা হয়। তিনিও ঝাড়ফুঁক করেন। ওঝার পরামর্শে পরবর্তীতে হাসপাতালে নেয়া হয় ফরহাদকে। হাসপাতাল থেকে ইনজেকশন দিতে গেলে ফরহাদের বাবা লালু মোল্লা ও মা পানুতি বেগম তাতে বাধা দেন। সেখান থেকে পুনরায় বাদুল্লা মাতুব্বরের ডাঙ্গী গ্রামে এক আত্মীয়ের বাড়িতে নিয়ে পুনরায় ওঝা দিয়ে ঝাড়ফুঁক চালানো হয়। ফরহাদ কিছুটা সুস্থ হলে সোমবার রাতে তাকে সেখান থেকে বাড়ি নিয়ে আসা হয়। এরপর মঙ্গলবার ভোররাত সাড়ে ৫টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

চরভদ্রাসন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, সাপে কামড়ানো ফরহাদকে হাসপাতালে আনার পর আমি ইনজেকশন দিতে গেলে স্বজনরা অস্বীকৃতি জানায়। রোগীর বিভিন্ন উপসর্গ ও ক্ষতস্থান দেখে মনে হয়েছে তাকে বিষধর বড় আকৃতির রাসেল ভাইপার সাপ কামড়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার কামরুন নাহার বলেন, বর্তমানে আমাদের উপজেলা হাসপাতাল ছাড়াও চারটি ইউনিয়নের নয়টি কমিউনিটি ক্লিনিকে বিষাক্ত সাপে কামড়ানোর চিকিৎসার ভ্যাকসিন পাওয়া যাচ্ছে। সংশ্লিষ্টদের মাধ্যমে প্রচারণাও চলছে। ওঝা দিয়ে ঝাড়ফুঁক না করে সাপে কামড়ানো রোগীকে দ্রুত হাসপাতালের নেয়ার পরামর্শও দেন তিনি।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন