শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮ ০৬:২৩:৫৭ এএম

দৃশ্যপটে সালাউদ্দিন

খেলাধুলা | বুধবার, ২৩ মে ২০১৮ | ০৪:১৭:৩৯ পিএম

আগের দিন তিন সিনিয়র ক্রিকেটারকে ডেকেছিলেন তিনি। কাল গ্যারি কারস্টেন ডাকলেন সাব্বির রহমান ও সৌম্য সরকারের মতো জুনিয়রদেরও। এক ফাঁকে দেখা গেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এসে হাজির স্থানীয় কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনও। জাতীয় দলে একসময় ফিল্ডিং এবং সহকারী কোচ হিসেবে কাজ করলেও দীর্ঘদিন দৃশ্যপটের বাইরে তিনি। ক্রিকেট প্রশাসনের বর্তমান মেরুকরণে তাঁর ত্রিসীমানায় ঘেঁষতে পারার সম্ভাবনা কালকের আগ পর্যন্ত ছিল না ছিটেফোঁটাও। তাহলে কারস্টেন কিভাবে তাঁর খোঁজ পেলেন এবং ডেকে আনলেন?

উত্তরটা কাল বিকেলে পাওয়া গেল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসানের কাছ থেকেই, ‘খেলোয়াড়দের কাছ থেকে নাম শুনেছেন।’ সেটি অপ্রত্যাশিতও নয়। কারণ জাতীয় দলের সিংহভাগ সিনিয়র ক্রিকেটারই সালাউদ্দিনের গুণমুগ্ধ। যেকোনো ক্রিকেটীয় সমস্যায় যখন-তখন তাঁর শরণাপন্ন হতে দ্বিধা করেন না সাকিব আল হাসান-মুশফিকুর রহিম-তামিম ইকবালরা। প্রথম দুজন নিজেদের বিকেএসপির শিক্ষাজীবনে কোচ হিসেবে পেয়েছেন সালাউদ্দিনকে। তামিম সেখানকার না হলেও কখনো তাঁর সহায়তা চেয়ে বিমুখ হননি। যেমন বিমুখ হননি বাংলাদেশের হয়ে সব শেষ দুটি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলা পিনাক ঘোষও। সেই সাভার থেকে প্রায়ই গাড়ি চালিয়ে এসে মিরপুরে এ তরুণের সমস্যা অনুযায়ী অনুশীলন করিয়ে যান। অনেক ক্রিকেটারের কাছেই তাই কোচ সালাউদ্দিন একটি ‘খোলা জানালা’।

কাল হোটেলে তাঁকে উপস্থিত হতে দেখেই কারো বুঝতে বাকি থাকেনি যে আইপিএলের সময় সাকিবের কাছ থেকেই সালাউদ্দিনের নামটি শুনে এসেছেন কারস্টেন। ঢাকায় এসে সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলোচনায়ও তিনি তুলেছিলেন এই স্থানীয় কোচের প্রসঙ্গ। তাতে সালাউদ্দিন সম্পর্কে এ দক্ষিণ আফ্রিকানের ধারণা আরো উঁচু না হয়ে পারেই না। কারণ এটি বলার অপেক্ষা রাখে না যে তামিম এবং মুশফিকও ভূয়সী প্রশংসা করেছেন সালাউদ্দিনের। সব শেষ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) সময় এক ম্যাচের পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে তো তামিম এক বাক্যেই রায় দিয়ে ফেলেছিলেন, ‘বিপুল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে তিনিই (সালাউদ্দিন) বাংলাদেশের সেরা কোচ।’ একাধিক খেলোয়াড়কে তাঁর বিষয়ে উচ্চকণ্ঠ হতে দেখে কালই সালাউদ্দিনকে ডেকে পাঠালেন কারস্টেন।

বলা যায়, খেলোয়াড়দের প্রশংসাই আবার জাতীয় দলের দৃশ্যপটে ফিরিয়ে আনল সালাউদ্দিনকে। ফিরে আসাই, কারণ হেড কোচ নিয়োগপ্রক্রিয়ার পরামর্শক হিসেবে আসা কারস্টেন জাতীয় দলের কোচিং স্টাফে একজন স্থানীয় কোচকেও রাখতে চান। সেই স্থানীয় কোচ সালাউদ্দিন ছাড়া আর কে! একটি সূত্রে জানা গেছে, কারস্টেন জানতে চেয়েছেন জাতীয় দলের সঙ্গে কাজ করতে সালাউদ্দিন আগ্রহী কি না? সালাউদ্দিনও ইতিবাচক সাড়া দিয়ে এসেছেন বলেই খবর। যদিও কাল সন্ধ্যায় ফোনালাপে বিষয়টি উহ্যই রাখলেন সালাউদ্দিন, ‘কারস্টেন আমার কাছে নানা বিষয় জানতে চেয়েছেন। আমিও যথাসম্ভব ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি।’ প্রস্তাব পাওয়ার বিষয়ে তিনি কিছু না বললেও কাল বিকেলে এর সত্যতা থাকল নাজমুলের বক্তব্যেও। নিজের কর্মস্থল ধানমণ্ডির বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসে কারস্টেনের সঙ্গে দীর্ঘ আলাপ শেষে বিসিবি সভাপতি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়ে গেলেন, ‘সালাউদ্দিনের কথাও উনি (কারস্টেন) বলেছেন, তবে হেড কোচ হিসেবে নয়।’ অর্থাৎ বিদেশি কোচের সঙ্গে কোনো না কোনো ভূমিকায় সালাউদ্দিনের জাতীয় দলে ফেরার পথ তৈরিই হয়ে থাকল!

নতুন সময়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন