রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ ০২:০৪:২৬ পিএম

ম্যাচ ফিক্সিং তদন্তে আইসিসিকে সাহায্য করবে যে দুই দেশ

খেলাধুলা | সোমবার, ২৮ মে ২০১৮ | ০৪:৩৫:১১ পিএম

ক্রিকেটে ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে বিস্ফোরক এক ডকুমেন্টারি প্রচার করেছে খ্যাতনামা সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা।

ম্যাচ ফিক্সিং তদন্তে আইসিসিকে সাহায্য করবে দুই দেশ। সেখানে ম্যাচ ফিক্সারদের দাবি করেছে, ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ ক্রিকেট ম্যাচ তাদের হাতে পাতানো হয়ে থাকে। ওই ডকুমেন্টারিতে আরো জানানো হয়েছে, শ্রীলঙ্কার গলে গত দুই বছরে দুটি টেস্টে উইকেট বিকৃত করেছে জুয়াড়িরা। যার একটিতে শ্রীলঙ্কার প্রতিপক্ষ ছিল ভারত ও অন্যটি অস্ট্রেলিয়া। এদিকে এ ঘটনায় ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট বোর্ড পৃথক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা এ বিষয়ে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসরণ করে ও আইসিসির তদন্তে পূর্ণ সহযোগিতা করবে।

এক বিবৃতিতে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই বলেছে, ‘একটি টিভি চ্যানেলের কথিত অভিযোগের বিষয়ে বিসিসিআইর দুর্নীতি বিরোধী ইউনিট খুব ঘনিষ্ঠভাবে আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটের সাথে কাজ করছে। বিসিসিআই ক্রিকেটের জন্য ক্ষতিকর কার্যক্রম বা কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করে।’

এদিকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান জেমস সাদারল্যান্ড বলেছেন, ‘যদিও অভিযোগের বিষয়ে বিশ্বাসযোগ্য কোন প্রমাণ বা ডকুমেন্টারি বা কোন ফুটেজ এখনো দেখিনি, তবু অভিযোগটি আমরা খুব গুরুত্ব সহকারে দেখছি এবং এ বিষয়ে পূর্ণ তদন্ত করা হবে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আইসিসির দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটকে এ বিষয়ে পূর্ণ সহযোগিতা করবে।’

এর আগে আল জাজিরা জানিয়েছে, তাদের তদন্তে ম্যাচ ফিক্সাররা বলেছে যে ২০১৬ সালে চেন্নাইয়ে ভারত-ইংল্যান্ড এবং গত বছরের মার্চে রাচিতে ভারত-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ স্পট ফিক্সারদের ভূমিকা ছিল। গুরুতর একটা রেকর্ডিংও আছে আল জাজিরার কাছে। সেখানে মুম্বাইয়ের ম্যাচ ফিক্সার আনিল মুনাওয়ার তাদের জানিয়েছেন যে তথ্য বিক্রি করে বেটিং থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা কামান তিনি।

সংবাদ মাধ্যমটি আরো জানিয়েছে গলে গত দুই বছরে দুটি টেস্টে উইকেট বিকৃত করেছে জুয়াড়িরা। মুম্বাইয়ের সাবেক প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটার রবিন মরিস এই অপকর্মের সঙ্গে জড়িত বলে দাবি করেছে তারা। বিকৃত উইকেটে হওয়া ম্যাচ দুটি হলো ২০১৬ সালে শ্রীলঙ্কা-অস্ট্রেলিয়া এবং গত বছরের জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কা-ভারত টেস্ট। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষের ওই টেস্টে মাত্র তিন দিনে হেরে যায় অস্ট্রেলিয়া।

এদিকে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছে, আল জাজিরার এই তদন্ত তারা গুরুত্বের সাথে নিচ্ছে এবং এ নিয়ে নিজস্ব তদন্ত শুরু করেছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন