রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮ ০৫:৫২:৫৮ এএম

ঋণ গ্রহণ ও আদায়কে রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত রাখার পরামর্শ

অর্থনীতি | সোমবার, ২৮ মে ২০১৮ | ০৮:০৫:০১ পিএম


ঋণ গ্রহণ ও আদায়ে যেন রাজনৈতিক প্রভাব না থাকে সে বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা।

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ স্টাডি ট্রাস্ট আয়োজিত ‘স্বপ্ন পূরণের বাজেট’ শীর্ষক প্রাক-বাজেট আলোচনায় অর্থনীতিবিদরা এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

অনুষ্ঠানে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. মির্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংকিং ব্যবস্থার উন্নয়নে ঋণ গ্রহণ ও আদায়ে যেন কোনো রাজনৈতিক প্রভাব না থাকে সে বিষয়ে নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি বিচার ব্যবস্থার শ্লথগতির কারণে অর্থঋণ আদালতে অনেক মামলা আটকে আছে। এ রকম ধীরগতির বিচারিক ব্যবস্থা থেকে উত্তরণের কি উপায় বের করা যায় তা চিন্তা করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, গত পাঁচ-ছয় বছরে বাজেট বাস্তবায়নের হার কমেছে, এ জন্য বাস্তবায়নে প্রশাসনিক দক্ষতা বাড়ানো দরকার।

তিনি বলেন, দারিদ্র বিমোচনের ক্ষেত্রে অগ্রগতি প্রশংসনীয়। তবে দারিদ্র বিমোচনের হার ক্রমন্বয়ে কমে আসছে এটা খারাপ।

সাবেক এ অর্থ উপদেষ্টা বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানগুলো সুষ্ঠভাবে পরিচালিত না হওয়ায় সরকারের অর্থ যাচ্ছে এবং এখানে শুভংকরের ফাঁকি থাকে। এগুলো তথাকথিত ঋণ হিসেবে দেয়া হয়। কয়েক লাখ কোটি টাকা এ প্রতিষ্ঠানগুলোর ঋণ আছে, এসব বিষয়ে বাজেটে ইঙ্গিত থাকা উচিত।

পিকেএসএফ চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান বলেন, টেকসই উন্নয়নে কাউকে বাদ দেয়া যাবে না, অনগ্রসরদের সামনে আনতে হবে। এ জন্য প্রথমে কৃষিতে জোর দিতে হবে।

‘উৎপাদনশীলতা বাড়াতে সহযোগিতা এবং কৃষক ও কৃষি শ্রমিককে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। কৃষিতে যান্ত্রিকীকরণের প্রয়োজন রয়েছে। যার ফলে কোনো সময় কর্মসংস্থান বাদ গেলে বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন