রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ ০৭:৫৯:১৭ এএম

রামুতে ইউপি ভবনে হামলা-ভাঙচুর, গ্রেফতার ১

জেলার খবর | কক্সবাজার | সোমবার, ২৮ মে ২০১৮ | ০৮:২২:০৪ পিএম

কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে নিজের পরিবারের কাজ করাতে ব্যর্থ হয়ে কক্সবাজারের রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদে হামলা করেছে দুর্বৃত্তরা।

হামলাকারীরা ইউনিয়ন পরিষদের আসবাবপত্র ভাঙচুর এবং চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের লাঞ্ছিত করেছে। হামলায় নেতৃত্ব দেয়া গোলাম মওলা নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার গোলাম মওলা রামুর আবদুল হক ওরফে হক সাবের ছেলে। সোমবার দুপুরে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম জানিয়েছেন, দুপুরে পরিষদ কার্যালয়ে ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের একটি গুরুত্বপূর্ণ সভা চলছিল।

এ সময় গোলাম মওলার নেতৃত্বে কয়েকজন দুর্বৃত্ত প্রবেশ করে চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়ায়। সেই সঙ্গে তারা চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করে।

তিনি এসবের কারণ জানতে চাইলে মওলা ও তার সহযোগীরা পরিষদের টেবিল, কাচসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। এ সময় মেম্বার এবং উপস্থিত জনতা গোলাম মওলাকে হাতে-নাতে ধরে বেঁধে রাখে।

চেয়ারম্যান বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করলে এসআই একরামের নেতৃত্বে রামু থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে। কিন্তু ততক্ষণে গোলাম মওলা নামাজ পড়ার অজুহাতে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ওই এলাকায় গিয়ে কৌশলে গোলাম মওলাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জাফর আলম জানিয়েছেন, সম্প্রতি কর্মসৃজন প্রকল্পের শ্রমিকদের দিয়ে বেড়িবাঁধ সংস্কার কাজ চলছে। গোলাম মওলা প্রকল্পের শ্রমিকদের দিয়ে জোরপূর্বক নিজের কাজ করানোর চেষ্টা চালাচ্ছিল। কিন্তু পরিষদ সুষ্ঠুভাবে কাজ করার জন্য শ্রমিকদের নির্দেশনা দেয়। এ নিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে পরিষদের এসে হামলা চালিয়ে তাদের লাঞ্ছিত করে।

ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম জানিয়েছেন, সরকারি জনগুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে এ ধরনের হামলা নজিরবিহীন। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

রামু থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, পরিষদ কার্যালয়ে হামলার অভিযোগে গোলাম মওলাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন