রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮ ০৯:০৫:৪৩ পিএম

তিন সিটির ভোটের তারিখ নির্ধারণ মঙ্গলবার

জাতীয় | সোমবার, ২৮ মে ২০১৮ | ০৮:৩৯:২০ পিএম

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সব সিটি করপোরেশন নির্বাচন শেষ করতে চায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর ধারাবাহিকতায় আগামী জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশনে নির্বাচনের পরিকল্পনা করেছে ইসি।

ঈদুল ফিতরের আগেই এই তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরিকল্পনা রয়েছে কমিশনের। এমনকি তিন সিটিতে ও ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার হতে পারে।

ইসি সূত্র জানা গেছে, আগামী জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে ভোটের তারিখ নির্ধারণ করা হতে পারে। এক্ষেত্রে ২৮ থেকে ৩১ তারিখের মধ্যে ভোট হতে পারে। এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আগামীকাল বৈঠকে বসবে নির্বাচন কমিশন।

ইসির কর্মকর্তারা বলছেন, মঙ্গলবারের বৈঠকে তিন সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসতে পারে। তবে তফসিলের আগে সিটিগুলোয় আইনি কোনো জটিলতা রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখছে কমিশন। এই তিন সিটির নির্বাচন অনুষ্ঠানে সরকারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে অনাপত্তিপত্র পেলেও আইনের বিষয়ে আরো তথ্য নেবে এই সাংবিধানিক সংস্থাটি।

ঢাকা উত্তর ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনের আইনি বিড়ম্বনা মোকাবিলার বিব্রতকর অভিজ্ঞতা মাথায় রেখে এ বিষয়ে আরো সতর্ক থাকবে নির্বাচন কমিশন।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, জুলাই মাসের শেষ দিকে ভোটগ্রহণের পরিকল্পনা নিয়ে কমিশন এগোচ্ছে। এক্ষেত্রে ঈদের আগেই এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হতে পারে।

এদিকে, এই তিন সিটি নির্বাচনে সংসদ সদস্যরা দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। ইতিমধ্যে এ বিষয়ে আচরণবিধির প্রয়োজনীয় সংশোধনী অনুমোদন দিয়েছে কমিশন। শিগগিরই ভেটিংয়ের জন্য এটি আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। আগামী ২৬ জুন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পরপরই এটি প্রজ্ঞাপন আকারে জারি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়াদ মেয়াদ শেষ হওয়ার পথে। ঈদের সরকারি ছুটি ও পরীক্ষার বিষয়গুলো বিবেচনা করে এ তিন সিটিতে ভোটের দিন নির্ধারণ করা হবে। এমনকি এ তিন সিটিতে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণের পরিকল্পনা ইসির রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, কমিশন ইতিমধ্যে আনুষ্ঠানিক একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচন পরিচালনার জন্য এলাকাগুলোর ভোটার তালিকার সিডি তৈরি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। ভোটকেন্দ্র প্রস্তুত করতে ইতিমধ্যে আদেশ জারি করা হয়েছে। নির্বাচনের তফসিল চূড়ান্ত করতে কমিশন মঙ্গলবার বৈঠকে বসছে। পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা করে ওই দিন ভোটগ্রহণের দিনক্ষণসহ তফসিলের সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

এর আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা এই বছর জুলাইয়ের মধ্যে সব সিটি করপোরেশন অনুষ্ঠানের কথা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, তিন সিটি করপোরেশনের মধ্যে রাজশাহী সিটিতে ভোট হয়েছে ২০১৩ সালের ১৫ জুন। প্রথম সভা হয় ২০১৩ সালের ৬ অক্টোবর। আইন অনুযায়ী এ সিটির মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ৫ অক্টোবর। ৯ এপ্রিল নির্বাচনের দিন গণনা শুরু হয়েছে। ৫ অক্টোবরের মধ্যে ভোট হতে হবে।

সিলেট সিটিতে ভোট হয়েছে ২০১৩ সালের ১৫ জুন। প্রথম সভা হয় ২০১৩ সালের ৯ অক্টোবর। এ সিটির মেয়াদ পূর্ণ হবে ৮ অক্টোবর। গত ১১ এপ্রিল এ সিটির নির্বাচনের দিন গণনা শুরু হয়েছে।

বরিশাল সিটিতে ভোট হয়েছে ২০১৩ সালের ১৫ জুন। প্রথম সভা হয় ২০১৩ সালের ২৪ অক্টোবর। আইন অনুযায়ী এ সিটির মেয়াদ পূর্ণ হবে ২৩ অক্টোবর। ২৭ এপ্রিল নির্বাচনের দিন গণনা শুরু হয়েছে। ২৩ অক্টোবরের মধ্যে করতে হবে নির্বাচন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন