মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ ০৪:২৫:৫০ এএম

শক্তিশালী তামাক শুল্কনীতি প্রণয়ন অত্যন্ত জরুরি

জাতীয় | সোমবার, ২৮ মে ২০১৮ | ০৯:৩১:৫৫ পিএম

বাংলাদেশে তামাকের ওপর বর্তমান শুল্ক কাঠামো জটিল ও স্তরভিত্তিক। এই শুল্ক কাঠামো সহজ করে একটি শক্তিশালী তামাক শুল্কনীতি প্রণয়ন অত্যন্ত জরুরি।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ‘তামাকজনিত রোগ ও মৃত্যু কমাতে কঠোর করনীতি প্রণয়নে জনপ্রতিনিধিদের নিকট আহ্বান’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এসব কথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যুরো অব ইকোনোমিক রিসার্চ, বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটি, বাংলাদেশ লাং ফাউন্ডেশন, ডক্টর’স ফর হেলথ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট, তামাকবিরোধী নারী জোট (তাবিনাজ), বাংলাদেশ তামাকবিরোধী জোট এবং ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ (ডাব্লিউবিবি) ট্রাস্টের সম্মিলিত উদ্যোগে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের (পবা) চেয়ারম্যান আবু নাসের খান, বাংলাদেশ ক্যান্সার সোসাইটির প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক গোলাম মহিউদ্দিন ফারুক, বাংলাদেশ তামাকবিরোধী জোটের সমন্বয়কারী ফরিদা আখতার প্রমুখ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডব্লিউবিবি ট্রাস্টের প্রকল্প কর্মকর্তা ফাহমিদা ইসলাম।

বক্তারা বলেন, বিদ্যমান তামাকের কর ব্যবস্থাকে যদি জনস্বাস্থ্য ও তামাক নিয়ন্ত্রণে কার্যরত সংগঠনগুলোর সুপারিশের আলোকে সংশোধন করা হয় তাহলে প্রায় ৬.৪২ মিলিয়ন বর্তমান প্রাপ্তবয়স্ক ধূমপায়ীদের ধূমপান ছাড়তে উৎসাহিত করবে; দীর্ঘমেয়াদে বর্তমান ধূমপায়ীদের মধ্যে অকালমৃত্যু ২.০১ মিলিয়নে কমিয়ে আনবে এবং অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি পাবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন