বৃহস্পতিবার, ২১ জুন ২০১৮ ১০:২০:৫১ এএম

মিয়ানমারকে চাপ দিতে চীনের প্রতি ডেপুটি স্পিকারের আহ্বান

জাতীয় | মঙ্গলবার, ২৯ মে ২০১৮ | ০৮:৫০:৩৬ পিএম

ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া বলেছেন, জাতিসংঘের পক্ষ থেকে কফি আনানের দেয়া সুপারিশগুলো বাস্তবায়নের মাধ্যমে রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধান সম্ভব। তিনি এ বিষয়ে চীনা সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির জাতীয় কমিটির ১৩তম সম্মেলনের ভাইস চেয়ারম্যান এইচ ই কং কুয়ানের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের প্রতিনিধি দল ডেপুটি স্পিকারের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় তিনি এ কথা বলেন। দেশে ফিরে বিষয়টি নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনার আশ্বাস দিয়েছেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।

এ সময় রোহিঙ্গা সমস্যাটিকে একটি আন্তর্জাতিক সমস্যা হিসেবে অভিহিত করে ডেপুটি স্পিকার বলেন, মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের মানবিক বিবেচনায় আশ্রয় দিয়েছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী। এ সমস্যা মোকাবেলায় মিয়ানমারকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। রোহিঙ্গাদের নিজ বাসভূমিতে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারকে চাপ দিতে চীনের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

জবাবে এইচ ই কং কুয়ান বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুটি একটি জটিল বিষয়, যা জাতিগত ও নৃতাত্ত্বিক সমস্যা। এ বিষয়ে চীন অবগত রয়েছে এবং পর্যবেক্ষণ করছে। চীনও চায় এই সমস্যার দ্রুত সমাধান হোক। তবে সমস্যাটা যেহেতু দু’দেশের, তাই বাংলাদেশ ও মিয়ানমার যৌথভাবে নির্দিষ্ট কোনো প্রস্তাব দিলে চীন সেটা বিবেচনা করবে। তিনি দেশে ফিরে তার দেশের সরকারের কাছে রোহিঙ্গাদের বাস্তব পরিস্থিতি তুলে ধরবেন বলেও আশ্বাস দেন।

তিনি আরও বলেন, আমি বাংলাদেশ সফরে এসে বুঝতে পারছি, খুব সুন্দর একটি দেশ। বাংলাদেশের মানুষ খুব অতিথিপরায়ণ। এ দেশের সঙ্গে চীনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের বন্ধন দিন দিন আরও দৃঢ় হবে। বাংলাদেশকে দক্ষিণ এশিয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ হিসেবে বিবেচনা করে চীন। এ দেশের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায় চীনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

চীনের প্রতিনিধিদলকে স্বাগত জানিয়ে ডেপুটি স্পিকার বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে চীন যে সহযোগিতা করে আসছে বাংলাদেশও সে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনায় রাখে। বিনিয়োগের জন্য দক্ষিণ এশিয়ার একটি উপযোগী দেশ বাংলাদেশে। বাংলাদেশে আরও বেশি বিনিয়োগ করতে চীনের প্রতি তিনি আহ্বান জানান।

এ সময় তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ, সংবিধান, সংসদীয় চর্চা, বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও উন্নয়নের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন