বুধবার, ২০ জুন ২০১৮ ০৬:০৭:৫৬ এএম

মেসিদের ধন্যবাদ জানালো ফিলিস্তিনিরা

খেলাধুলা | বুধবার, ৬ জুন ২০১৮ | ১০:২৮:০২ এএম


পবিত্র ভূমি হিসেবে পরিচিত জেরুজালেমে তিন ধর্মাবলম্বী মানুষের পবিত্র স্থান। গেল বছরের শেষ দিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সেই জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর থেকেই বিক্ষোভ আরো প্রকট আকার ধারণ করে। জেরুজালেম একমাত্র জায়গা যাকে ফিলিস্তিন এবং ইসরায়েল দুই দেশই রাজধানী হিসেবে দাবি করে আসছে। আর সেখানেই বিশ্বকাপের আগে প্রীতি ম্যাচ খেলতে যাচ্ছিল মেসির আর্জেন্টিনা। কিন্তু ফিলিস্তিনি তথা পুরো বিশ্বের আপামর মানুষের বিক্ষোভের জেরে অবশেষে সেই প্রীতি ম্যাচটি বাতিল করলো আর্জেন্টিনা। আর এতেই পুরো ফিলিস্তিনিবাসীর কাছ থেকে ধন্যবাদ পেল মেসিরা।

মঙ্গলবার রাজনৈতিক ইস্যুর জের ধরে ইসরায়েলের সঙ্গে বিশ্বকাপের পূর্বে প্রীতি ম্যাচ বাতিল করে আর্জেন্টিনা ফুটবল দল। এর ঠিক পরেই এএফইকে দেওয়া এক তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ফিলিস্তিন ফুটবল ফেডারেশনের আন্তর্জাতিক বিভাগের পরিচারল সুসান শালাবি জানান, ‘রাজনৈতিক অস্থিরতার ভেতর ইসরায়েলের খেলতে না আসার জন্য আর্জেন্টিনা দলকে অনেক ধন্যবাদ। খেলার সঙ্গে যে রাজনীতি মেশানো নিয়ে এটি একটি উদাহরণ হয়ে থাকবে বিশ্বের কাছে।’

ইসরায়েলিরা পেশা হিসেবে নেওয়া আর্জেন্টিনার যেকোন জিনিসকে তাদের না দেওয়ার জন্য আর্জেন্টিনাকে সতর্ক করে দেন শালাবি। কিন্তু ইসরায়েলের সঙ্গে পৃথিবীর অন্য কোথাও খেলা হলে সেটি নিয়ে শালাবির আপত্তি নেই বলেও জানান তিনি। এর আগে ফিলিস্তিনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান জিব্রিল রাজব ইসরায়েলে আর্জেন্টিনা খেলতে আসলে তাদের জার্সি পোড়ানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন। রাজব মনে করছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল দল এবং লিওনেল মেসি তাদের অনুভূতিতে আঘাত হেনেছেন। রজব বলেছিলেন, ‘সে (মেসি) একটি বিশাল প্রতীক এবং তাই আমরা তাকে ব্যক্তিগতভাবে চিহ্নিত করতে যাচ্ছি। আমরা সবাইকে বলেছি তার ছবি ও জার্সি পোড়াতে এবং তাকে বর্জন করতে। তবে আমরা এখনো আশা করছি মেসি সেখানে যাবে না।’

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন