রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ ০৫:২৮:২৮ এএম

কিশোরীকে খুনের পর ফের ধর্ষণ !

আন্তর্জাতিক | রবিবার, ১০ জুন ২০১৮ | ১২:৫৬:২৮ পিএম

হামিদুল ! পুরো নাম হামিদুল আলি খান। অপরাধ ধর্ষন। শুদু ধর্ষন করেই ক্ষ্যান্ত হননি তিনি। ধর্ষনের পর হত্যা করা হয়েছে এক কিশোরীকে। এর পর ফের আবার ধর্ষন করে এই পাষন্ড।

ঘটনা ভারতের তমলুকের চিয়াড়া গ্রামে। কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেপ্তার অভিযুক্ত। ধৃতের নাম শেখ হামিদুল আলি খান। আজ হাওড়া জেলার কুলগাছিয়া থেকে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে সে। কোলাঘাট থানার OC কাশীনাথ চৌধুরি জানিয়েছেন, জেরার মুখে কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুনের কথা স্বীকার করে নিয়েছে হামিদুল। খুনের পর সে ফের ধর্ষণ করে কিশোরীকে। জেরায় এও জানিয়েছে।

গত বুধবার বিকেলে বাড়ির পিছনে স্নান করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে যায় ওই কিশোরী। এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, দুষ্কৃতীরা তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে খুন করে। প্রতিবাদে চিয়াড়া ও বুড়ারি গ্রামের বাসিন্দারা পথ অবরোধ করে। শনিবার সকালে অর্ধনগ্ন মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ঘটনার তদন্ত শুরু করে কোলাঘাট থানার পুলিশ।

কীভাবে খুন করা হয়েছে কিশোরীকে? OC কাশীনাথ চৌধুরি জানিয়েছেন, হামিদুল জেরারা মুখে নিজের অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছে। জানিয়েছে, ওইদিন দুপুরে কিশোরীর বাড়িতে কেউ ছিল না। তাই হামিদুল আম পাড়তে গিয়েছিল। আম পাড়তে দেখে কিশোরী প্রতিবাদ করে। দুজনের মধ্যে ঝামেলা হয়। কিশোরীকে সে চড়থাপ্পড় মারে। বাড়ির পাশে একটি ড্রেনে ফেলে তাকে ধর্ষণ করে। এই সময় মেয়েটি চেঁচামেচি করায় গলা টিপে খুন করে। জেরায় আরও জানায়, শ্বাসরোধ করে খুনের পর আবারও ধর্ষণ করে। এরপর কিছুটা দূরে খড়পাতা দিয়ে মৃতদেহ চাপা দিয়ে চলে যায়।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পরদিন হামিদুল এলাকাতেই ছিল। দ্বিতীয়দিন রাত্রে মৃতদেহ সেখান থেকে টেনে নিয়ে গিয়ে খড়িবনের জঙ্গলে ফেলে দেয়। তারপর পালিয়ে যায়। হাওড়ার কুলগাছিয়ায় গা-ঢাকা দেয়। কাল তমলুক আদালতে তোলা হবে হামিদুলকে। খবর ইদুনিয়াইন্ডিয়া

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন