সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ ১০:০৬:৫৮ পিএম

খালেদা জিার মুক্তিতে রাজপথে আন্দোলনের ডাক দিলেন মান্না

রাজনীতি | রবিবার, ১০ জুন ২০১৮ | ০৭:১১:২০ পিএম

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে আন্দোলনে নামার আহ্বান জানিয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, দুঃখ বা আফসোসের কথা বলে মানুষের মন গলানো যাবে না। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি দিয়েও কাজ হবে না। বিএনপি চেয়ারপাসরনকে মুক্ত করতে হলে দলের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনে করতে হবে। যেভাবে কোটার দাবিতে ছাত্ররা নেমেছিল, যেভাবে দেশের পেশাজীবীরা নেমেছিলেন, ঠিক সেভাবেই সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে রাজপথে নামতে হবে। তাহলেই এরা মাথা নত করবে, এরা দেশ ছেড়ে পালাবে। তবেই বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া জেলের তালা ভেঙে বীরের বেশে ফিরে আসতে পারবেন।

রাজধানীর বিজয়নগরের একটি রেস্তোরায় শনিবার (৯ জুন) সন্ধ্যায় শিক্ষক-কর্মচারী ঐক্যজোট আয়োজিত ‘গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের অভাবে বিপর্যস্ত শিক্ষা ব্যবস্থা’ শিরোনামের এই আলোচনা অনুষ্ঠানেএসব কথা বলেন তিনি।

দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার জামিন প্রক্রিয়া গত চারমাস ধরে সরকারের প্রচ্ছন্ন ইংগিতে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে উল্লেখ করে মান্না বলেন, শারীরীক অসুস্থতা কিংবা চিকিৎসার প্রয়োজনীয়তা তারা (সরকার) উপেক্ষায় করে যাবে। কারণ এরা মানুষ মেরে লাশের উপর দিয়ে আবার ক্ষমতায় যেতে চায়। বাঁচাতে যদি চান, তাহলে লড়াই করবার জন্য প্রস্তুত হন। যে সরকারকে মানুষ মেরে লাশ ফেলে রাখবার পরেও জবাবদিহি করবার দরকার হয় না, তাদের ভোটের দরকার নাই।

ছাত্রজীবন বামপন্থি রাজনীতিতে করে আসা ডাকসুর সাবেক ভিভি ও পরে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করা এই নেতা বলেন, বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মী এটা বুঝতে হবে যে, বেগম জিয়া যদি মৃত্যুবরণও করেন তাতেও ক্ষমতাসীনদের হৃদয় এতটুকু বিচলিত হবে না। কাজেই লড়াই করতে হবে।

সেনা সমর্থিত সরকারের আমলে সংস্কারপন্থী হওয়ায় আওয়ামী লীগের পদ হারিয়ে নতুন দল নাগরিক ঐক্যের প্রতিষ্ঠাতা মান্না মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, বিএনপির শীর্ষনেতারা যদি মনে করেন, তারা একটি বড় দল এবং তারা আন্দোলনের কর্মসূচি দিলেই সরকারের গদি নড়ে ওঠবে, তাহলে ভুল করবেন।কারণ এরকম একটা জবরদস্তিমূলক সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করবার জন্য সর্বব্যাপী ঐক্য লাগবে।এই যে একটার পর একটা জামিন বাতিল করা হচ্ছে। নতুন নতুন মামলা দেওয়া হচ্ছে বেগম জিয়ার নামে- এটা কত বড় অন্যায়! বিচার বিভাগ তার জবাব দেবে না। কারণ সরকারের জবাবদিহি নাই। তবে আমি মনে করি, উনি (খালেদা জিয়া) বিজয়ীর বেশেই বেরিয়ে আসবেন।

চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কথিত বন্দুকযুদ্ধে প্রাণহানির সমালোচনাও করে মান্না বলেনম মাদক নিয়ন্ত্রণের নামে সরকার বিনা বিচারে মানুষ হত্যা করছে। এর মাধ্যমে জনমনে আতংক সৃষ্টি করছে। মানুষের মধ্যে নিরাপত্তাহীনতা তৈরি করছে। তিনি আরে বলেন, এভাবেই মানুষের মধ্যে আতংক তৈরি করে, লুটেরা ধনীদের হাতে জনগণের সম্পদ তুলে দেয়। যতক্ষণ পর্যন্ত একটা অংশগ্রহণমূলক, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত এসব সমস্যার কোনো সমাধান হবে না।

অর্থমন্ত্রীর ঘোষিত বাজেটে তরুণ প্রজন্মের জন্য কোনো দিক নির্দেশনা নেই দাবি করে তিনি বলেন,এই দেশের অনেক বেকার তরুণ স্ব-উদ্যোগে অনলাইনভিত্তিক নানা ব্যবসা করছে। সেসবের উপর ভ্যাট আরোপ করে তাদের কর্মসংস্থান এর পথ আরো সংকুচিত করা করছে। অপরদিকে সরকার সুস্পষ্টভাবে দুর্নীতিবাজদের মদদ দিচ্ছে।সুশাসনের ভীষণ অভাব থাকা বেসরকারি ব্যাংকগুলো নানা ক্ষেত্রে সরকারের অবিশ্বাস্য পরিমাণ প্রণোদনা পাবার পরেও তাদের কর্পোরেট কর ৪০% থেকে ৩৭.৫%-এ নামিয়ে আনা প্রমান করে সরকার ক্রমবর্ধমানভাবে লুটেরা ধনীদের আরও বেশি সুবিধা দিচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ওদিকে মাদক নিয়ন্ত্রণের নামে সরকার বিনা বিচারে মানুষ হত্যা করছে। এর মাধ্যমে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। মানুষের মধ্যে নিরাপত্তাহীনতা তৈরি করছে। একটা ম্যান্ডেটহীন সরকার এভাবেই মানুষের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করে, লুটেরা ধনীদের হাতে জনগণের সম্পদ তুলে দেয়। যতক্ষণ পর্যন্ত একটা অংশগ্রহণমূলক, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন না হবে, যতক্ষণ পর্যন্ত সরকারকে জবাবদিহিতার আওতায় না আনা যাবে, ততক্ষণ পর্যন্ত এসব সমস্যার কোনো সমাধান হবে না।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন