মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮ ০২:৫৩:৪২ এএম

ইসরায়েলের বিপক্ষে মেসির না খেলার আসল কারন

খেলাধুলা | মঙ্গলবার, ১২ জুন ২০১৮ | ০৩:০০:৩৮ পিএম

গত ৯ তারিখ ইসরায়েলের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার কথা ছিল আর্জেন্টিনার। তবে শেষ মুহুর্তে ম্যাচটি বাতিল করে আর্জেন্টিনা। কারন হিসেবে জানা যায়, রাজনৈতিক কারনে ম্যাচটি বাতিল করেছিল আর্জেন্টিনা। ইসরায়েলের বিপক্ষে মেসির না খেলার আসল কারন।

এরপর মেসি সোশ্যাল মিডিয়ায় এক পোষ্টে বলেন, যারা মানুষ হত্যা করে তাদের বিপক্ষে আমি খেলতে পাড়িনা। আর্জেন্টিনার এই ম্যাচ বাতিলকে সমর্থন করেছিল হিগুইনসহ অনেকেই।

তবে এই ম্যাচ নিয়ে বিতর্ক চলছেই। ইসরায়েলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, হামাস আর্জেন্টাইন তারকা মেসিকে হত্যার হুমকি দিলে মেসিকে বাঁচানোর জন্যই আর্জেন্টিনা ম্যাচটি খেলতে আসেনি।

ইসরায়েলের এই কথার যথেষ্ট যুক্তিও ছিল। কারন, ফিলিস্তিন অনেক দিন ধরেই আন্দোলন করছিল ম্যাচটি বাতিলের জন্য। তাতে কর্নপাত করেনি আর্জেন্টিনা। উল্টো জানিয়েছিল ম্যাচটি তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ন। খোদ মেসিও বলেছিল ম্যাচটি তাদের জন্য বিশ্বকাপের আগে নিজেদের পরীক্ষা করে নেয়ার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ন।

কিন্তু হঠাৎই কেন পাল্টে গেল সব?
এবার অবশ্য আর্জেন্টিনাও শিকার করেছে মেসিকে হুমকি দেয়ার কথা। আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট ক্লদিও তাপিয়াও কিন্তু ঘুরিয়ে ফিরিয়ে ইজরায়েলের মন্ত্রীর সুরেই কথা বলেছেন। তার ভাষায়, ‘সামগ্রিক পরিস্থিতি বিচার করেই ম্যাচ খেলা সম্ভব হয়নি। ইজরায়েলের মানুষের বিরুদ্ধাচরণ করতে এমন সিদ্ধান্ত নেয়নি আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশন।

মেসিকে যে খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছিল তা স্বীকার করে আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনের এক কর্মকর্তাও বলেছেন, হুমকিটা দিচ্ছিল প্যালেস্তাইনের জঙ্গি গোষ্ঠী হামাস। এছাড়া ফিলিস্তিনি ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের এক কর্মকর্তাও কদিন আগে মেসির জার্সি পোড়ানোর আহ্বান জানিয়েছিলেন। এসব কারণে নাকি শংকায় পড়ে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন