বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ ০৮:০০:২৮ এএম

চট্টগ্রামে মধ্যযুগীয় বর্বরতার শিকার এক শিক্ষক পরিবার

আনোয়ারা সংবাদদাতা | জেলার খবর | চট্টগ্রাম | শুক্রবার, ২৯ জুন ২০১৮ | ০৪:১৫:৫৫ পিএম

আনোয়ারা উপজেলায় এক শিক্ষক পরিবারের উপর নারকীয় হামলা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। জমি দখল নিয়ে ক্ষান্ত হয়নি ষাটোর্ধ অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক আবু নাছের তার দুই পুত্র কামাল হোসেন ও শাখাওয়াত হোসেনকে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করা হয়। পরে সন্ত্রাসীরা ওই জমির গাছ পালা কেটে নিয়ে বিক্রি করে দিয়েছে।

গুরুতর আহত শিক্ষক ও তার দুই ছেলেকে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঈদের পরদিন ১৭ জুন বিকেলে হাইলধর ইউনিয়নের উত্তর ইছাখালী গ্রামে হামলার এঘটনা ঘটেছে। ঘটনার ৬ দিন পর পুলিশ এখনো পর্যন্ত একজন সন্ত্রাসীকেও গ্রেফতার না করায় সাধারন মানুষের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। আহত শাখাওয়াত হোসেন পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটি সরকারী মেডিকেল কলেজে পড়েন।

ঈদের ছুটিতে বাড়ি গিয়ে পিতা পুত্র এ হামলার শিকার হন বলে জানা গেছে।


সুত্র জানান, চট্টগ্রাম জেলার আনোয়ারা উপজেলার হাইলধর ইউনিয়নের উত্তর ইছাখালী গ্রামের অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক আবু নাছেরের বাড়ি। পূর্র্ব শক্রতার জের ধরে পাশ্ববর্তী রমিজ আহমদ এর ছেলে আহমদ কবির,আহমদ নুর,আহমদ ছফা, আমিনুল হক,আমির হোসেন, আহমদুল হক সহ একদল সন্ত্রাসী নিয়ে পাশের জমি দখলে নিয়ে গাছ পালা কেটে ফেলে।

এ ঘটনার প্রতিবাদ জানান মাষ্টার আবু নাছের ও তার ছেলেরা। এসময় সন্ত্রাসীরা ষাটোর্ধ বয়সি মাষ্টার আবু নাছেররকে ধারালো অস্ত্র দা,ছুরি,কিরিস,খন্ডা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। একইভাবে তার দুই ছেলে কামাল হোসেন ও শাখাওয়াত হোসেনকেও মারধর করে গুরুতর আহত করে। সন্ত্রাসীরা জমির গাছ পালা কেটে ক্ষান্ত হয়নি তারা এসময় উল্লাসে ফেটে পড়ে।  এ হামলা মধ্যযুগীয় বর্বরতাকেও হার মানিয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা। ঘটনার দিন সন্ত্রাসীরা কয়েক ঘন্টা তান্ডবে মেতে উঠলেও স্থানীয় লোকজন ভয়ে কেউ সামনে এগুতে পারেনি। এঘটনার পর মাষ্টার আবু নাছেরের পুত্র শাহাদাত হোসেন ৬ জনকে আসামী করে স্থানীয় থানায় মামলা দায়ের করেন। তবে এপর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করেনি বলে জানান আহত কামাল হোসেন।

শিক্ষক আবু নাছের এর অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন