মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ ০৯:৫৮:৫৮ এএম

তজুমদ্দিনে পুলিশের উপর আসামী পক্ষের হামলায় ওসি সহ আহত ১৫: আটক ১

সাদির হোসেন রাহিম | জেলার খবর | ভোলা | শনিবার, ৩০ জুন ২০১৮ | ১১:৩২:৩৫ পিএম

ভোলার তজুমদ্দিনে চুরি ও মাদক মামলার আসামী গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও আসামী পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ওসি সহ ১৫ জন আহত হয়ে তজুমদ্দিন সদর হাসপাতালে ভর্তি হন।

জানা যায়, তজুমদ্দিনের নতুন বাজার এলাকা থেকে চুরি হওয়া মোবাইল সহ লালমোহন উপজেলার চর ছকিনা গ্রামের আবদুল মোতালেবের ছেলে মোঃ মিরাজ মাতাব্বর (৩০) কে আটক করে থানায় নিয়ে আসার সময় দক্ষিণ খাসের হাট বাজারে এলে আসামীর শশুর ছায়েদুল হক ছাদু চৌকিদারের নেতৃত্বে তার ছেলেরা জামাতা মিরাজকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় তারা আসামী ছিনিয়ে নেয়ার জন্য ওসি সহ চার পুলিশের উপর লাঠিসোটা নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। চৌকিদার গ্রুপের হামলায় তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ ফারুক আহমেদ, এসআই মনিরুজ্জামান, এসআই জসিম উদ্দিন, কনস্টেবল মাহমুদ, লিটন, আমির হোসেন, নোমান, জামাল, জসিম, মাকসুদসহ ১৫জন আহত হয়। আহতদেরকে তজুমদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আটককৃত মিরাজের বিরুদ্ধে নেশা খাইয়ে চুরি, চোরা চালান, মাদক ব্যবসা, জাল নোট ব্যবসা ও অস্ত্র আইনে লালমোহন ও তজুমদ্দিন থানায় ৫টি মামলা রয়েছে। গত ২৭ মে রাতে শম্ভুপুর খাসেরহাট এলাকার জামাল উদ্দিন মাষ্টারের ঘরে রাতের বেলায় নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে নগদ ৩৫ হাজার টাকা, মোবাইলসহ বিভিন্ন মামলামাল নিয়ে যায়। এঘটনায় জামাল মাষ্টার বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে মোবাইলসহ মিরাজকে আটক করা হয়। আটককৃত মিরাজ লালমোহন উপজেলার কালমা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের চরছকিনা গ্রামের আব্দুল মোতালেবের ছেলে। শুক্রবার সে খাসেরহাট নতুন বাজার শশুড় বাড়ির এলাকায় চুরি করা মোবাইল বিক্রি করতে আসলে পুলিশ তাকে আটক করে। এদিকে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ছাদু চৌকিদার, তার ছেলে ফরিদ, সেলিম ও কামালসহ ৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৫০ জনকে আসামী করে এসআই মনিরুজ্জামান বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১৪, তারিখ ২৯/৬/২০১৮ ইং।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ ফারুক আহমেদ জানান, আমাদের ফোর্স আসামী মিরাজকে কে আটক করে থানায় নিয়ে আসার সময় দক্ষিণ খাশের হাট বাজার এলাকায় ছাদু চৌকিদার দলবল নিয়ে আসামী ছিনিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্যে পুলিশের উপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বাকী আসামী গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন