বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ ১২:১৮:৪৮ এএম

আলোচনার প্রথম শর্ত খালেদা জিয়ার মুক্তি: নজরুল ইসলাম খান

রাজনীতি | শুক্রবার, ২৭ জুলাই ২০১৮ | ০৪:৪২:৫৯ পিএম


শিমুল মাহমুদ: কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত না করে আলোচনা বা নির্বাচন কোনটাই করা হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

তিনি বলেছেন,আমাদের কিছু ন্যায্য দাবি রয়েছে। আমরা আমাদের দাবি নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনায় বসতে চাই। আমরা বলছি না খালেদা জিয়ার দণ্ড মওকুফ করে দিন। বরং আপনারা সরকারি উকিল দিয়ে বেগম জিয়ার কারাবাস দীর্ঘায়িত করছেন। সেটা বন্ধ করুন, আমরা চাই তিনি জামিনে বের হয়ে আসুক। তিনি যেনো তার চিকিৎসা নিতে পারেন এবং আমরা যেন তার নেতৃত্বে নির্বাচন করতে পারি।

শুক্রবার (২৭জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ(জেটব) কর্তৃক আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, যুদ্ধ যখন চলে, তখন আলোচনার মাধ্যমে যুদ্ধের সমাপ্তি ঘটে। কাজেই আন্দোলন-সংগ্রাম ও আলোচনার মাধ্যমে সমাধান হতে পারে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ যদি আলোচনায় বসতে চায়,আমার মনে হয় এটা ভালো লক্ষণ। বিএনপি চাইলে আওয়ামী লীগ আলোচনায় বসতে রাজি আছে ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যেকে আমরা স্বাগত জানাই। তবে এই কথা কতক্ষণ স্থির থাকে এ নিয়ে আমরা দুশ্চিন্তায় রয়েছি।

মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, এই সরকার একটা মামলাবাজ, একটা হামলাবাজ সরকার। তারা মিথ্যা মামলা দেন,আপনি যদি সেই মামলায় হাজির না হন। গ্রেফতারি পরোয়ানা দিয়ে আপনাকে কারারুদ্ধ করা হবে। আর যদি আপনি হাজিরা দিতে যান তাহলে তাদের দলীয় লোক দিয়ে আপনার উপর হামলা করা হবে। মাহমুদুর রহমানকে তাই করা হয়েছে।

ভিডিও ফুটেজ রয়েছে এ হামলায় কারা রয়েছে, কারা তাকে মারছেন এবং তিনি এবং তিনি আত্মরক্ষার চেষ্টা করছেন সব কিছু দেখা যায়। কিন্তু আজ পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হলো না। আমি অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি

নজরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের প্রকৃত গণতন্ত্র, জনগণের শাসন, জনগণের দ্বারা নির্বাচিত, জনগণের কাছে দায়বদ্ধ একটা সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা লড়াই করছি। এবং সে নির্বাচন সকলের অংশগ্রহণে হতে হবে অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হতে হবে। হামলা-মামলা আর সিট ভাগাভাগি ২০১৪ সালের নির্বাচন আমরা হতে দেব না।

বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন,বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খাইরুল কবির খোকন,জাতীয়তাবাদী টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার, উপদেষ্টার অন্যতম সদস্য মিজানুর রহমান, সংবাদিক কাদের গণি চৌধুরী, ঢাকা বিশববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড.ওবায়দুল ইসলাম প্রমুখ।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন