শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ ০২:৪৬:৫৩ পিএম

ক্ষমতা পেলেই আ.লীগ বদলে যায়:ফখরুল (ভিডিওসহ)

ডেটঃ ২৭-১১-২০১৬

আওয়ামী লীগকে লিখিত সৈরাচার বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
রবিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ড্যাব কর্তৃক আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন।
তিনি বলেন, দেশে আওয়ামী লীগের কারণে গণতন্ত্র আজ নির্বাসিত, মৃত প্রায়। এ দেশের গণতন্ত্র সেই একই আওয়ামী সৈরাচার সরকারের কারণে আবারও পাল্টে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলেই ভয়াবহ রুপে পরিনত হয়। তারা বলে একটা কিন্তু করে আরেকটা।
মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের সব অ-পৃতিকর ঘটনার সাথে আওয়ামী লীগ জরিত। সাঁওতালদের উপর হামলা, নাসিরাবাদে হামলা, সিলেটের খাদিজাদের উপর হামলা, ট্যান্ডার বাজি, দূর্নীতি, রাহাজানি, জায়গা দখল সব খানে আওয়ামী লীগ।
অথচ সরকার সব কাজে বিএনপিকে জারায়। দেশে কোন ঘটনা ঘটলেই তার সাথে বিএনপি সম্পৃক্ত করে মামলা দিয়ে দেয়।
দেশে কোন শান্তি নেই, আমাদের সব অর্জনকে ধ্বংষ করে দিয়েছে এই দানব সরকার।
কিন্তু দেশের মানুষ বিএনপির সাথে আছে বলে জানান মির্জা ফখরুল।
বিএনপির আন্দোলনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, কারা বলে বিএনপি আন্দোলন করে না। ২০১৩-১৪ সালে বিএনপির আন্দোলন হয়েছে। আন্দোলনে গেলে আমাদের নেতাকর্মীদের গুলি করা হয়েছে, গুম করা হয়েছে,
অন্য খবরঃ "নানা রকম হিসাব-নিকাশের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন"
মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার এবং কারাগারে নিক্ষেপ করা হয়েছে। বিএনপির নেতাকর্মীদের শেষ করে দেওয়ার পরিকল্পনা করে।
খালেদা জিয়া স্বামী হারিয়েছে, সন্তান হারিয়েছে, বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে, মিথ্যা মামলা, হামলা দেওয়া হচ্ছে এতো অত্যাচার জুলুম করার পরেও তার বিরুদ্ধে কুৎসা করতে দিধা করছে না সরকার বলে জানান মির্জা ফখরুল।
গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য সরকারকে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আসুন আমরা একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের ব্যবস্থা করি, সেখানে সকল দলের অংশ গ্রহণ থাকবে, সবাই গ্রহণ করবে আর যদি না চান তবে ভাববো আপনারা আবারও আগের মত জোর করে ক্ষমতা টিকে রাখতে চান।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, বন্দুক পিস্তল হাতে থাকলে অনেক মুখরোচক কথা বলা যায়। দাম্ভিকতা পরিহার করুন।
সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, দেশটাকে কার পৈতৃক সম্পত্তি ভাববেন না। এটা ১৬ কোটি মানুষের সম্পত্তি। সকলের অধিকার হরণ করার ক্ষমতা আপনার নেই।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, আমানুল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, ড্যাবের মহাসচিব এ জেড এম জাহিদ, সিরাজ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন

শেয়ার